নয়াদিল্লি: শক্তি বাড়ল ভারতীয় বায়ুসেনার। অবশেষে ভারতে হাতে এল মার্কিন অ্যাপাচে হেলিকপ্টার। শুক্রবার আনুষ্ঠানিকভাবে বায়ুসেনার হাতে তুলে দেওয়া হল সেই হেলিকপ্টার।

আমেরিকার আরিজোনা প্রদেশের মেসাতে আনুষ্ঠানিক ভাবে প্রথম হেলিকপ্টারটি ভারতের হাতে তুলে দেওয়া হয়। ভারতীয় বিমান বাহিনীর তরফে এদিন উপস্থিত ছিলেন এয়ার মার্শাল এএস বুটোলা।

এই অনুষ্ঠানে মার্কিন সরকারেরও বেশ কয়েকজন প্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন। মোদী সরকার ক্ষমতায় আসার পর ২০১৫-র সেপ্টেম্বরে মার্কিন সরকারের সঙ্গে অ্যাপাচে কপ্টার কেনার বিষয়ে চুক্তি সই করেছিল ভারত। মোট ২২টি অ্যাপাচে কপ্টার কেনা হয়েছে। অত্যাধুনিক এই হেলিকপ্টার যুদ্ধে অত্যন্ত দক্ষ। বিশেষ করে পাহাড়ি এলাকার জন্য খুবই উপযোগী অ্যাপাচে কপ্টার।

এই বছরের জুলাই মাসে অ্যাপাচে কপ্টারের প্রথম ব্যাচ দেশে পৌঁছবে। ভারতীয় সেনাবাহিনী ও বিমানবাহিনীর কয়েকজন অফিসারকে এই কপ্টার চালানোর প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে। অ্যাপাচে কপ্টার বিমান বাহিনীতে যোগ হওয়ার ফলে এর শক্তি কয়েকগুণ বেড়ে গেল বলে আশা করা হচ্ছে।

গত ফেব্রুয়ারিতেই ভারতের মাটিতে আসে চিনুক হেলিকপ্টার। একইসঙ্গে এই দুই হেলিকপ্টার কেনার চুক্তি হয়েছিল। প্রথম ব্যাচের চিনুক হেলিকপ্টার পৌঁছে যায় গুজরাতের মুন্দ্রা এয়ারপোর্টে। ভারতীয় বায়ুসেনায় শীঘ্রই যগ দেবে এই চারটি হেলিকপ্টার।

আমেরিকা থেকে ১৫টি হেলিকপ্টার আসবে ভারতে। হেলিকপ্টারগুলি তৈরি করেছে মার্কিন সংস্থা বোয়িং। বর্তমানে ভারত ব্যবহার করে রাশিয়ার তৈরি Mi-17 ও Mi-26 হেলিকপ্টার।

চুক্তি হয়েছিল মোদী ক্ষমতায় আসার পর। লোকসভা নির্বাচনেই আগেই সেই যুদ্ধ হেলিকপ্টার আসে ভারতে। ফিলাডেলফিয়ায় ভারতের হাতে আনুষ্ঠানিকভাবে ‘চিনুক’ হেলিকপ্টার তুলে দেয়ে আমেরিকা।