মুম্বই: রাজকোটে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ম্যাচ জেতানো ৮৫ রানের ইনিংসটি খেলেছিলেন একমাসেরও বেশি সময় আগে। এরপর সবধরনের ফর্ম্যাটে হিটম্যানের ব্যাটে রানের খরা। মুম্বইতে ঘরের মাঠে বুধবার সেই হারানো ফর্ম ফিরে পাওয়ার লক্ষ্যেই রোহিত গুরুনাথ শর্মা। আর রোহিতের ফর্মে ফেরার পাশাপাশি ক্যারিবিয়ানদের বিরুদ্ধে আরও এক সিরিজ জয়েই বুধবার পাখির চোখ বিরাট কোহলি ব্রিগেডের।

বিশ্বকাপ বা পরবর্তী সময়ে ব্যাট হাতে ২০১৯ যতটা সপ্রতিভ রোহিত, তুলনায় অনেকটা নিষ্প্রভ ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ততম ফর্ম্যাটে। ২১১৩ রান সংগ্রহ করে ওয়ান -ডে ফর্ম্যাটে চলতি ক্যালেন্ডার ইয়ারে বিশ্বের সর্বোচ্চ রানসংগ্রাহীদের তালিকায় অধিনায়ক বিরাটের ঠিক পিছনেই রয়েছেন রোহিত। গড় পঞ্চাশেরও বেশি। অথচ টি-২০ ফর্ম্যাটে ২৫ ব্যাটিং গড়ে ১৩ ম্যাচে চলতি ক্যালেন্ডার ইয়ারে হিটম্যানের সংগ্রহ মাত্র ৩২৫ রান। ৩টি অর্ধশতরান থাকলেও গত ছ’বছরে এটাই সবচেয়ে খারাপ ব্যাটিং গড় রোহিতের।

এহেন রোহিত ক্যারিবিয়ানদের বিরুদ্ধে সিরিজ নির্ণায়ক ম্যাচে ঘরের মাঠে ব্যাট হাতে ছাপ রাখতে চান। বছরের শেষ টি-২০ ম্যাচে রোহিতের ব্যাটে ঝড় দেখার অপেক্ষায় ওয়াংখেড়েও। কারণ, ওপেনার হিসেবে রোহিতের ব্যাটিংয়ে অনেকটাই নির্ভর করে ভারতের জেতা হারা। চলতি বছর টি-২০ ক্রিকেটে ভারত হেরেছে ৭টি ম্যাচে। যার মধ্যে ৫টি ম্যাচে প্রথমে ব্যাট করে বড় রান করতে ব্যর্থ ‘মেন ইন ব্লু’। আর প্রথমে ব্যাটিং করে ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের এই সাফল্য-ব্যর্থতা অনেকাংশে নির্ভরশীল ‘ওপেনার’ রোহিতের ব্যাটে। তাই পোলার্ডদের বিরুদ্ধে বুধের নির্ণায়ক টি-২০’তে সব চোখ ঘরের ছেলের ব্যাটিংয়ে।

তবে পরিস্থিতি যাই হোক, কোনওভাবেই ব্যাটিং স্টাইলে বদল আনতে নারাজ রোহিত। ম্যাচের আগে সাংবাদিকদের তেমনটাই জানালেন দলের ওপেনিং ব্যাটসম্যান। হিটম্যানের কথায়, ‘প্রথমে ব্যাট করি কিংবা রান তাড়া করি আমার ব্যাটিং স্টাইলে কোনরকম বদল হবে না। প্রথম কয়েকটা বলে আমি পিচের চরিত্র বুঝে শট সিলেকশন করে নেব। হায়দরাবাদে ২০৭ রান তাড়া করার সময়ও আমি একই পদ্ধতি অবলম্বন করেছিলাম। একবার পিচের চরিত্র বুঝে গেলে তোমার পছন্দমতো শট খেলতে কোনও অসুবিধা হওয়ার কথা নয়।’

রোহিত আরও জানান, ‘তোমার ব্যাটিং অনেকটা নির্ভর করবে তোমার পার্টনারের ব্যাটিংয়ের উপরেও। আমাদের ব্যাটসম্যানদের কিছু দায়িত্ব দেওয়া হয় ম্যানেজমেন্টের পক্ষ থেকে। পরিস্থিতি বিশেষে সেগুলো পরিবর্তন হয়। আমরা সবাই তৈরি থাকি সেই পরিস্থিতির জন্য।’ সবমিলিয়ে ওয়াংখেড়েতে বুধবার মূল ফোকাস রোহিতের ব্যাটেই। পরীক্ষা-নিরীক্ষার জেরে দলে কিছু বদল এলেও অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না। কারণ, আগামী বছর বিশ্বকাপের কথা মাথায় রেখে আপাতত পরীক্ষা-নিরীক্ষার পথেই হাঁটছে টিম ইন্ডিয়া। গত ম্যাচে ৩৩ রান করলেও পন্তের পারফরম্যান্স আতস কাঁচের নীচেই থাকবে। নজরে থাকবেন ওয়াশিংটন সুন্দরও। বদলি হিসেবে আসতেই পারেন সঞ্জু স্যামসন কিংবা কুলদীপ যাদব।

উলটোদিকে সিরিজে কামব্যাক করা ক্যারিবিয়ানরাও তাল ঠুকছেন বিরাটের দলকে হারিয়ে সিরিজে কব্জা নিতে।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

Tree-bute: রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও