নয়াদিল্লি: পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ রূপ নিচ্ছে। সোমবার সকাল পর্যন্ত দেশে করেনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ১১৭৩ জন। মৃত্যু হয়েছে ৩১ জনের।

মহারাষ্ট্রে সবচেয়ে বেশি করোনা সংক্রমণ ছড়িয়েছে। ২১৫ জন আক্রান্ত হয়েছেন। সংক্রমণের নিরিখে মহারাষ্ট্রের পরেই রয়েছে কেরল। সোমবার সকাল পর্যন্ত এই রাজ্যে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২০২ জন।

রাজ্যে রাজ্যে বাড়ছে সংক্রমণ।এখনও পর্যন্ত ওডিশায় তিনজন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত। মধ্যপ্রদেশে ৪৭ জন, লাদাখে ১৩ জন পাঞ্জাবে ৩৯, পুদুচেরিতে ১, রাজস্থানে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

এছাড়াও তামিলনাড়ুতে ৫০, তেলেঙ্গানা ৭০, উত্তরপ্রদেশে ৭২ উত্তরাখণ্ডে ৭, আন্দামানে ১০ অন্ধ্রপ্রদেশে ২১, বিহারে ২৫, চণ্ডীগড়ে ৮ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন।

গুজরাটে সোমবার সকাল পর্যন্ত ৬৯ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। গোয়ায় আক্রান্তের সংখ্যা ৫ জন। দিল্লিতে এখনো পর্যন্ত ৭২ জন করোনা রোগী চিহ্নিত হয়েছেন।

হরিয়ানায় হিমাচলে ৩৫, কর্নাটকে ৮৩ জনের শরীরে মিলেছে করোনার জীবাণু।

জম্মু-কাশ্মীরে ৪১ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। প্রায় ৬০০০ বাসিন্দাকে হোম আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। প্রতিনিয়ত তাদের ওপর নজর রাখা হচ্ছে।

মারণ ভাইরাসের প্রকোপ বাড়ছে পশ্চিমবঙ্গেও। সোমবার সকাল পর্যন্ত ২২ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। রবিবার রাতে পশ্চিমবঙ্গে করোনা আক্রান্ত হয়ে আরো একজনের মৃত্যু হয়। উত্তরবঙ্গ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন কালিম্পংয়ের বাসিন্দা ওই মহিলা। এই নিয়ে বাংলায় করোনা আক্রান্ত হয়ে দুজনের মৃত্যু হলো।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।