নয়াদিল্লি: ভারতীয় সেনাবাহিনী এবং চিনা সামরিক বাহিনী পূর্ব লাদাখের সীমান্ত অঞ্চলে ধীরে ধীরে ভারী অস্ত্র নিয়ে আসছে। সীমান্ত এলাকার কাছেই কামান এবং যুদ্ধের গাড়ি সহ ভারী সরঞ্জাম ও অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে আসা হচ্ছে। সামরিক সূত্রে খবর, ওই এলাকায় বিগত ২৫ দিন ধরে উভয়পক্ষের মধ্যে সংঘাতের উত্তেজনাময় পরিবেশ রয়েছে।

চিন ও ভারত উভয় দেশ একদিকে যেমন সামরিক ও কূটনৈতিক পর্যায়ে আলোচনার মাধ্যমে এই বিরোধ নিষ্পত্তি করার চেষ্টা চালাচ্ছে। তেমনই একই ভাবে ওই অঞ্চলে দুই সেনাবাহিনীই যুদ্ধে সক্ষমতা বাড়ানোর জন্য নানান কাজ করছে।

বর্তমানে চিন মিলিটারি সীমান্তের যে এলাকায় রয়েছে সেখান থেকে ভারতের অংশে ঢুকতে মাত্র কয়েকঘণ্টা লাগবে। লাইন অফ অ্যাকচুয়াল কন্ট্রোলের বিভিন্ন জায়গায় ভারতের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়াচ্ছে চিন।

সূত্র জানিয়েছে, চিনা সেনাবাহিনী লাইন অফ অ্যাকচুয়াল কন্ট্রোলের কাছের ঘাঁটিগুলিতে নানান যুদ্ধের গাড়ি ও ভারী যুদ্ধের সঞ্জাম নিয়ে এসেছে।

ভারতীয় সেনাবাহিনীও চিনা বাহিনীকে পাল্লা দিতে অতিরিক্ত সেনা আনিয়েছে। এছাড়া আর্টিলারের মতো অস্ত্র ওই এলাকায় পাঠানো হয়েছে। ভারতীয় বিমান বাহিনীও ওই এলাকায় নিজেদের কড়া নজর রেখেছে।

সূত্রের খবর, ইতিমধ্যেই একাধিকবার মুখোমুখি হয়েছে ভারত-চিন। তবে ফিংগার ফোর অঞ্চলে বিশাল সংখ্যায় চিন সেনা শক্তি প্রদর্শন করে দুটি রাস্তা এবং লেকের রুটের ব্যবহারে ক্ষমতা কায়েম করার চেষ্টা করেছে তবে তা সফল হয়নি।

তবে চিনকে কিছুটা হলেও কাবু করেছে ভারত। দেশের মাটির কোনওদিকেই চিন সেনার ঢুকতে না পারার সব ব্যবস্থা করা হয়েছে। সতর্ক রয়েছে ভারতীয় সেনা।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং শনিবার জানিয়েছেন, এই সমস্যা সমাধানের জন্য চিনের সঙ্গে সামরিক ও কূটনৈতিক পর্যায়ে দ্বিপক্ষীয় আলোচনা চলছে।

কলকাতার 'গলি বয়'-এর বিশ্ব জয়ের গল্প