দুবাই: আইসিসি ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে ওঠা থেকে মাত্র এক কদম দূরে কোহলি অ্যান্ড কোং৷ পিঙ্ক বল টেস্ট হেরে আইসিসি ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের দৌড় থেকে ছিটকে গিয়েছে ইংল্যান্ড। আর বৃহস্পতিবার থেকে আমদাবাদে শুরু হওয়া সিরিজের চতুর্থ তথা শেষ টেস্ট ড্র করতে পারলেই বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে পৌঁছে যাবে ভারত৷ সেক্ষেত্রে ১৮ জুন ফাইনালে ভারতের সামনে থাকবে নিউজিল্যান্ড৷

নিউজিল্যান্ড আগেই ফাইনালের টিকিট নিশ্চিত করেছে। দ্বিতীয় দল হিসেবে ফাইনালে টিকিট অর্জনের লড়াইয়ে রয়েছে ভারত ও অস্ট্রেলিয়া। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে অজিদের কোনও টেস্ট সিরিজ না-থাকায় অস্ট্রেলিয়া তাকিয়ে রয়েছে ভারত-ইংল্যান্ড সিরিজের শেষ টেস্টের দিকে। মোতেরার শেষ টেস্ট জিতলে বা ড্র করলে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল খেলবেন কোহলিরা। তবে রুটরা যদি শেষ টেস্টে ভারতকে হারিয়ে দেয়, তবে ফাইনালে চলে যাওয়ার কথা অস্ট্রেলিয়ার।

আইসিসি-র তরফে ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালের জন্য এমনই সমীকরণের কথা জানিয়ে দেওয়া হয়েছে৷ কিন্তু পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে ছবিটা বদলে যেতে পারে। ভারত শেষ টেস্টে হারলেও তারা ফাইনালের টিকিট নিশ্চিত করতে পারে। সিডনি মর্নিং হেরাল্ডে প্রকাশিত খবর অনুয়ায়ী আইসিসি দক্ষিণ আফ্রিকা বোর্ডের দায়ের করা অভিযোগ খতিয়ে দেখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া দোষী সাব্যস্ত হলে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের দৌড় থেকে ছিটকে যাবে অস্ট্রেলিয়া৷ সেক্ষেত্রে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে শেষ টেস্ট হেরেও প্রথম আইসিসি ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়শিপের ফাইনালের টিকিট নিশ্চিত করে ফেলবে টিম ইন্ডিয়া।

গত মাসে তিন টেস্টের সিরিজ খেলতে দক্ষিণ আফ্রিকা যাওয়ার কথা ছিল অস্ট্রেলিয়ার। কিন্তু করোনা সংক্রমণের অযুহাতে শেষ মুহূর্তে সিরিজ থেকে সরে দাঁড়ায় অস্ট্রেলিয়া। দক্ষিণ আফ্রিকা বোর্ড আইসিসি-র কাছে সরকারিভাবে অভিযোগ দায়ের করে। ক্ষতিপূরণ দাবি করার পাশাপাশি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের পয়েন্টে টেবলে নিয়ম পরিবর্তনের দাবি জানায় ক্রিকেট সাউথ আফ্রিকা৷ আইসিসি পরিত্যক্ত সিরিজের জন্য অস্ট্রেলিয়ার কাছ থেকে অ্যাওয়ে পয়েন্ট কেটে নিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকার খাতায় যোগ করতে পারে৷ সেক্ষেত্রে অজিদের পক্ষে ফাইনালে যাওয়া কোনওভাবেই সম্ভব হবে না।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।