কার্ডিফ: নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে প্রস্তুতি ম্যাচের ফলাফল দেখে নাক সিঁটকেছিলেন যারা, ফের আশায় বুক বাঁধতে পারেন তারা। মূলপর্ব শুরু হওয়ার আগে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে বড় ব্যবধানে জয় দিয়েই বিশ্বকাপের অন্তিম প্রস্তুতি সারলেন বিরাটরা। মঙ্গলবার কার্ডিফে বেঙ্গল টাইগারদের ৯৫ রানে ‘বধ’ করল মেন ইন ব্লু। লোকেশ রাহুল-এমএস ধোনির জোড়া শতরানে ভারতের ৩৫৯ রানের জবাবে বাংলেদেশ ইনিংস শেষ হয়ে গেল ২৬৪ রানেই। একইসঙ্গে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে প্রথম ম্যাচে নামার আগে প্রয়োজনীয় আত্মবিশ্বাস জোগাড় করে নিল কোহলির ভারত।

সোফিয়া গার্ডেনে টস জিতে টিম বিরাটকে এদিন ব্যাটিংয়ে আমন্ত্রণ জানায় বাংলাদেশ। ওপেনিং জুটি দ্বিতীয় প্রস্তুতি ম্যাচেও ব্যর্থ। তবে কিউয়ি ম্যাচের ভুল-ত্রুটি শুধরে এদিন ভারতকে রানের পাহাড়ে দাঁড় করিয়ে দেন মিডল-অর্ডার ব্যাটসম্যানরা। তরুণ সইফুদ্দিনের ডেলিভারিতে অধিনায়ক বিরাটকে ৪৭ রানে ফিরতে হলেও চার নম্বরে ব্যাট করতে নেমে ৯৪ বলে শতরান করলেন কোহলির দলের নির্ভরযোগ্য ডানহাতি কেএল রাহুল৷ ৯৯ বলে রাহুলের ১০৮ রান সাজানো ১২টি চার ও ৪টি ছয় দিয়ে৷ সেই সঙ্গে বিশ্বকাপে ভারতের চার নম্বর স্থানে নিজের জায়গা পাকা করলেন এই কর্ণাটকী।

বিজয় শংকরের সঙ্গে চার নম্বরের লড়াইয়ে ছিলেন তিনি৷ ধোনির সঙ্গে মিডল অর্ডারে এদিন ১৫৩ রানের জমাটি পার্টনারশিপে দলকে আড়াইশো রানের গণ্ডি পার করান তিনি৷ রাহুলের পাশাপাশি এদিন ধোনির ব্যাটেও শতরান৷ কেন কোহলির দলে তিনি অপরিহার্য, ফের একবার বুঝিয়ে দিলেন ৩৭ বছর বয়সী উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান৷ ধোনির ৭৮ বলে ১১৩ রানের ইনিংস সাজানো ৮টি চার ও ৭টি ছয় দিয়ে৷ শেষ দিকে দুরন্ত ক্যামিও ইনিংস হার্দিকের৷ মাত্র ১১ বল খেলে ২১ রান তুলে দেন পান্ডিয়া, ৪ বল খেলে ১১ রান হাঁকিয়ে দলকে রানের চূড়ায় পৌঁছে দেন রবীন্দ্র জাদেজা৷ ৭ উইকেট হারিয়ে ভারতের ইনিংস থামে ৩৫৯ রানে।

রান তাড়া করতে নেমে ওপেনার লিটন দাসের ৭৮ ও উইকেটকিপার ব্যাটসম্যানের দুরন্ত ৯০ রানে ভর করে চেষ্টা করে বাংলাদেশ। কিন্তু পাহাড়প্রমাণ লক্ষ্যমাত্রা এবং সর্বোপরি ভারতীয় বোলিং আক্রমণের সামনে তিন বল বাকি থাকতে ২৬৪ রানেই শেষ হয়ে যায় বাংলাদেশের ইনিংস। বাংলাদেশ ব্যাটসম্যানদের সামনে এদিন ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠেন কুল-চা জুটি। ১০ ওভার হাত ঘুরিয়ে দুই স্পিনারই তুলে নেন ৩টি করে উইকেট। সৌম্য সরকার ও শাকিব আল হাসানকে পরপর দু’বলে সাজঘরে ফেরান বুমরা। ১টি উইকেট নেন জাদেজা।

নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচে হতাশাজনক পারফরম্যান্সের পর রাহুল-ধোনির জোড়া শতরান সর্বোপরি বড় ব্যবধানে প্রথম ম্যাচের আগে বিরাটদের যে বাড়তি অক্সিজেন দেবে, তা বলাই বাহুল্য। এখন দেখার ৫ জুন টাইটানিকের শহরে ‘ফেভারিট’ টিম ইন্ডিয়ার বিশ্বকাপ অভিযানের শুরুটা কতটা প্রত্যাশিত হয়।

Proshno Onek II First Episode II Kolorob TV