পোচেস্ট্রুম: আরও একবার বিশ্বকাপের শেষ চারে ভারত৷ অস্ট্রেলিয়াকে হেলায় হারিয়ে মঙ্গলবার অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে পৌঁছে গেল ভারত৷ মঙ্গলবার পোচেস্ট্রুমে ছোট অজিদের পর্যুদস্ত করে সহজেই বিশ্বকাপের শেষ চারে জায়গা করে নেয় ভারতের ছোটরা৷ অস্ট্রেলিয়াকে ৭৪ রানে হারায় চারবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা৷

লিগে অপরাজিত থেকে কোয়ার্টারে পৌঁছেছিল প্রিয়ম গর্গের ভারত৷ কিন্তু শেষ আটে তাদের সামনে ছিল তিনবারের চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া৷ কিন্তু স্কোর বোর্ডে ২৩৪ রান নিয়েও কার্তিক ত্যাগির দুরন্ত বোলিংয়ে ভর করে হাসতে হাসতে ম্যাচ জিতে নেয় ভারত৷ রান তাড়া করতে নেমে শুরুতে ত্যাগির বোলিংয়ের সামনে অসহায় আত্মসমর্পণ করেন অস্ট্রেলিয়ার টপ-অর্ডার ব্যাটসম্যানরা৷ ৮ ওভারে ২৪ রান খরচ করে ৪ উইকেট নিয়ে ম্যাচের সেরা ত্যাগি৷

মাত্র ১৭ রানে চার উইকেট হারায় অস্ট্রেলিয়া৷ ইনিংসের প্রথম বলেই রান-আউট হন অজি ওপেনার ফ্রেজার ম্যাকগুর্ক৷ ওভারেই চতুর্থ ও পঞ্চম বলে দু’টি উইকেট নিয়ে অজিদের শুরুতেই ব্যাকফুটে ঠেলে দেন ত্যাগি৷ সেখান আর ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি অস্ট্রেলিয়া৷ ৬৮ রানে অর্ধেক অজি ইনিংস শেষ করে দেন ভারতীয় বোলাররা৷ কিন্তু ওপেন করতে নেমে একদিন ধরে রেখে ভারতকে চিন্তায় রাখেন স্যাম ফ্যানিং৷ একা লড়াই করেও শেষরক্ষা করতে পারেননি তিনি৷ ৭৫ রানের লড়াকু ইনিংস খেলে আকাশ সিংয়ের বলে উইকেটের পিছনে ক্যাচ দিয়ে ড্রেসিংরুমে ফেরেন তিনি৷ ৩০ রান দিয়ে তিনটি উইকেট নেন তিনি৷

ফ্যানিংয়ের লড়াইয়ে সহায়তা করেন লিয়াম স্কট৷ কিন্তু ব্যক্তিগত ৩৫ রানে রবি বিষ্ণুর শিকার হন তিনি৷ দু’জনে ষষ্ঠ উইকেট ৮১ রান যোগ করে যখন ম্যাচ ফিরছিলেন ঠিক তখনই স্কটকে আউট করেন ভারতীয় এই স্পিনার৷ এর পরই তাসের ঘরের ঘরের মতো ভেঙে পড়ে বাকি অজি ইনিংস৷ ১৫৯ রানে গুটিয়ে যায় অস্ট্রেলিয়া৷

এদিন টস হেরে প্রথমে ব্যাটিং করে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৯ উইকেটের ২৩৩ রান তোলে ভারত৷ ইনিংস শুরু করলেও ভারত পর পর উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যায়৷ ওপেনার দিব্যাংশ সাক্সেনা ২৬ বলে ১৪ রান করে কেলির বলে উইকেটকিপার রউয়ির হাতে ধরা পড়েন৷ মিডল-অর্ডারের তিনজন নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যান তিলক বর্মা, প্রিয়ম গর্গ ও ধ্রুব জুরেল ব্যাট হাতে ব্যর্থ হন৷ অধিনায়ক প্রিয়ম ৫ রান করে ক্রিজ ছাড়েন৷

কিন্তু যশস্বী জসওয়াল টুর্নামেন্টে নিজের তৃতীয় হাফ-সেঞ্চুরি করেন৷ শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে ৫৯, জাপানের বিরুদ্ধে অপরাজিত ২৯ ও নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে অপরাজিত ৫৭ রান করা যশস্বী এদিন ৮২ বলে ৬২ রানের গুরুত্বপূর্ণ ইনিংস খেলেন৷ ৬টি চার ও ২টি ছক্কা হাঁকান তিনি৷ সিদ্ধেশ বীর ২৫ রান করে উইকেট দিয়ে আসেন৷ দলগত ১৪৪ রানে ভারত ৬ উইকেট হারিয়ে কোণঠাসা হয়ে পড়ে৷ রবি বিষ্ণোইকে সঙ্গে নিয়ে অথর্ব সপ্তম উইকেটে মূল্যবান ৬১ রান যোগ করেন৷ ৩১ বলে ৩০ রান করে রান-আউট হন রবি৷