মেলবোর্ন: ফেভারিট তকমা নিয়ে খেলতে নেমে টুর্নামেন্টের শুরু থেকেই নিজেদের নামের প্রতি সুবিচার করছে ভারতের মেয়েরা। গ্রুপের প্রথম তিন ম্যাচ জিতে প্রথম দল হিসেবে কুড়ি-বিশের বিশ্বকাপের সেমিতে পা রেখেছে হরমনপ্রীত ব্রিগেড। শনিবার শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে গ্রুপের অন্তিম তথা শেষ ম্যাচ স্বাভাবিকভাবেই হরমনপ্রীতদের কাছে ছিল নিয়মরক্ষার। তবে অপরাজিত থেকে সেমিফাইনালে যাওয়ার সুযোগটা হাতছাড়া করার পক্ষপাতী ছিল না ‘উইমেন ইন ব্লু’।

দাপটের সঙ্গেই গ্রুপের চতুর্থ ম্যাচে দ্বীপ রাষ্ট্রকে হেলায় উড়িয়ে দিল হরমনপ্রীত ব্রিগেড। মেলবোর্নের জংশন ওভালে ভারতের মেয়েরা জিতল ৭ উইকেটে। তাও আবার ৩২ বল বাকি থাকতেই। বল হাতে এদিন ভারতের ম্যাচ জয়ের নায়িকা যদি হয়ে থাকেন স্পিনার রাধা যাদব তাহলে উইলো হাতে এদিন ফের বিধ্বংসী রুপ দেখালেন টিন-এজ সেনসেশন শেফালি বর্মা।

টস জিতে এদিন জংশন ওভালে প্রথমে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন শ্রীলঙ্কা অধিনায়কা চামারি আতাপাত্তু। ব্যাট হাতে দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৩৩ রানও তাঁর। এছাড়া ভারতীয় বোলারদের দাপটে বিশেষ কিছু করে উঠতে পারেননি সিংহলী ব্যাটাররা। শেষদিকে কাভিসা দিলহারির ১৬ বলে ২৫ রানে ক্যামিও ইনিংসে ভর করে ২০ ওভারে ১১৩ রান তুলতে সমর্থ হয় শ্রীলঙ্কা। ৪ ওভারে ২৩ রান দিয়ে সর্বোচ্চ ৪ উইকেট নেন বাঁ-হাতি স্পিনার রাধা যাদব। তবে ৪ ওভারে ১৬ রান দিয়ে কৃপণতম বোলিং দীপ্তি শর্মার। দীপ্তির ঝুলিতে ১টি উইকেট। রাজেশ্বরী গায়কোয়াড়ের ঝুলিতে ২টি উইকেট। এছাড়াও ১টি করে উইকেট নেন শিখা পান্ডে এবং পুনম যাদব।

১১৪ রানের লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে ব্যাট করতে নেমে ফের ঝোড়ো ব্যাটিং ওপেনার শেফালির। কিউয়িদের বিরুদ্ধে গত ম্যাচে খেলেছিলেন ৩৪ বলে ৪৬ রানের ইনিংস। এদিন সমসংখ্যক বল খেলে করলেন বিস্ফোরক ৪৭। টিন-এজ ওপেনারের ইনিংস সাজানো ছিল ৭টি চার ও ১টি ছয়ে। যদিও দলীয় ৩৪ রানের মাথায় ব্যক্তিগত ১৭ রানে আউট হয়ে ফিরে যান আরেক ওপেনার স্মৃতি মন্ধনা। কিন্তু স্বল্প রানের টার্গেট নিয়ে শেফালির ব্যাটেই জয়ের গন্ধ পেয়ে যায় ভারতীয় শিবির।

১৫ রানে আউট হন অধিনায়কা হরমনপ্রীত। অল্প রানের ব্যবধানে অর্ধশতরান থেকে ৩ রান দূরে দাঁড়িয়ে ডাগ-আউটে ফেরেন শেফালিও। কিন্তু ভারতের মসৃণ জয় আটকায়নি। মাত্র ১৪.৪ ওভারে দলকে জয় এনে দেয় জেমিমা রডরিগেজ ও দীপ্তি শর্মার ২৮ রানের অবিভক্ত জুটি। ১৫ রানে অপরাজিত থাকেন জেমিমা এবং দীপ্তি। জয়ের ফলে ৪ ম্যাচে ৮ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে থেকেই সেমিতে ভারতের মেয়েরা।