রাঁচি: দেওধর ট্রফির শুরুতেই বড় জয় তুলে নিল পার্থিব প্যাটেলের নেতৃত্বাধীন ইন্ডিয়া-বি দল৷ জেএসসিএ ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়ামে হনুমা বিহারীর নেতৃত্বাধীন ভারতীয়-এ দলকে ১০৮ রানে পরাজিত করল ইন্ডিয়া-বি৷

টস জিতে হনুমা বিহারী প্রথমে ব্যাট করার আমন্ত্রণ জানান পার্থিবদের৷ ঋতুরাজ গায়কোয়াড় ও বাবা অপরাজিতের জোড়া শতরানে ইন্ডিয়া-বি নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৬ উইকেটের বিনিময়ে ৩০২ রান তোলে৷ জবাবে ব্যাট করতে নেমে ইন্ডিয়া-এ ৪৭.২ ওভারে ১৯৪ রানে অল-আউট হয়ে যায়৷

আরও পড়ুন: এই পরিবেশে ফিট থাকা কঠিন, দিল্লির দূষণ নিয়ে উদ্বিগ্ন ছেত্রীও

ইন্ডিয়া-বি দলের শুরুটা অবশ্য ভালো হয়নি৷ ওপেনার প্রিয়ঙ্ক পাঞ্চাল ৩ রান করে আউট হন৷ যশস্বী জসওয়াল সেট হয়েও উইকেট দিয়ে আসেন৷ ৪টি চার ও ১টি ছক্কার সাহায্যে ৩৪ বলে ৩১ রান করে আউট হন সাজঘরে ফেরেন৷ বাবা অপরাজিতের সঙ্গে জুটি বেঁধে তৃতীয় উইকেটে ১৫৮ রান যোগ করেন ঋতুরাজ গায়কোয়াড়৷ ঋতুরাজ ৮টি চার ও ৪টি ছক্কার সাহায্যে ১২২ বলে ১১৩ রান করে আউট হন৷ অপরাজিত রান-আউট হন ১০১ বলে ১০১ রান করে৷ তিনি ৬টি চার ও ২টি ছক্কা মারেন৷

কেদার যাদব ৫ ও বিজয় শঙ্কর ২৬ রান করে ক্রিজ ছাড়েন৷ কৃষ্ণাপ্পা গৌতম ৮ বলে ১৯ রান করে অপরাজিত থাকেন৷ রবিচন্দ্রন অশ্বিন ৪০ রানের বিনিময়ে ২টি উইকেট নেন৷ জয়দেব উনাদকাট নেন ৪৭ রানে ২টি উইকেট৷ ১টি উইকেট নিলেও ১০ ওভারে ৭৭ রান খরচ করেন সিদ্ধার্থ কউল৷

আরও পড়ুন: এনসিএ’র নয়া রূপদান নিয়ে দ্রাবিড়ের সঙ্গে আলোচনা সৌরভের

‘এ’ দলের হয়ে একা লড়াই চালান ক্যাপ্টেন হনুমা বিহারী৷ তিনি ৮২ বলে ৫৯ রান করে আউট হন৷ এছাড়া অভিমন্যু ঈশ্বরন ২০, দেবদূত পাডিক্কাল ১০, বিষ্ণু বিনোদ ১১, অমনদীপ খাড়ে ২৫, ইশান কিষাণ ২৬ ও শাহবাজ আহমেদ ১৮ রান করে আউট হন৷ খাতা খুলতে পারেননি অশ্বিন৷

রুশ করলিয়া ২০ রানে ৩টি উইকেট নেন৷ মহম্মদ সিরাজ নেন ৩০ রানে ২টি উইকেট৷ ৪০ রানে ১টি উইকেট কৃষ্ণাপ্পা গৌতমের৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।