শংকর দাস, বালুরঘাট: ”মোদের গরব, মোদের আশা, আ-মরি বাংলা ভাষা।” অমর একুশের পথ ধরে শুক্রবার দুই বাংলার মানুষের মহামিলন ক্ষেত্রের পুণ্যভূমিতে পরিণত হল হিলি। বৃহস্পতিবার হিলির আন্তর্জাতিক সীমান্তের জিরো পয়েন্টে দুই পাড়ের বাংলাভাষীরা একসঙ্গে একুশের বীর সন্তানদের প্রতি শ্রদ্ধা জানালেন।

এদিন হিলি চেকপোস্টে দুই বাংলার মানুষ ভাষা শহীদদের স্মরণে একে অপরকে বুকে জড়িয়ে ধরলেন। ভাষা আন্দোলনের ইতিহাস তুলে ধরার পাশাপাশি মাতৃভাষাকে নিয়ে তাঁদের গর্বের বিভিন্ন দিক নিয়েও আলোচনা করেন। এদিন দুই বাংলার মানুষের বাঁধ ভাঙা আবেগের সামনে বাধা হয়ে দাঁড়ায়নি দুই দেশের সীমান্তের অতীন্দ্র প্রহরী বিএসএফ এবং বিজিবি।

হিলি-তুরা বাংলাদেশ করিডোর কমিটির আয়োজনে, সীমান্তের জিরো পয়েন্টে দুই দেশের বাংলাভাষী মানুষ যৌথভাবে একুশের ভাষা আন্দোলনের শহীদদের শ্রদ্ধার্ঘ নিবেদন করেন। আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের এই মিলিত শ্রদ্ধার্ঘের মাধ্যমে ইন্দো-বাংলা দুই দেশে ভাতৃত্বের বন্ধন আরও সুদৃঢ় হল বলে মনে করছেন সকলে।

এদিনের এই অনুষ্ঠানে করিডোর কমিটির তরফে উপস্থিত ছিলেন, দক্ষিণ দিনাজপুরের সমাজসেবী তথা নাট্যব্যক্তিত্ব জিষ্ণু নিয়োগী সহ বিশিষ্টজনেরা। অনুষ্ঠানটি আয়োজনে অংশ নিয়েছিল উজ্জীবন সোসাইটি নামের একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন। অন্যদিকে বাংলাদেশের হাকিমপুর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান শাহীনুর রেজা শাহীন ও বাংলাদেশের বিশিষ্ট সাংবাদিক জাহিদুল ইসলাম ও বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার লিয়াকাট আলি সহ আরও অনেকে উপস্থিত ছিলেন।