নয়াদিল্লি: ভারতের মানচিত্র ভুল দিয়ে বিতর্কের মুখে পড়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। এবার ফের WHO-কে হুঁশিয়ারি দিল ভারত। মানচিত্র ঠিক করার জন্য ফের দেওয়া হল বার্তা।

সম্প্রতি এক বড়সড় ভুল করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। বিভিন্ন রং ব্যবহার করে একটি বিশ্ব মানচিত্র প্রকাশ করেছে হু। সেখানে ভারত থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে জম্মু কাশ্মীর ও লাদাখকে। এই ঘটনায় বেশ সাড়া পড়েছে। ব্রিটেনের প্রবাসী ভারতীয়রা যথেষ্ট ক্ষুব্ধ গোটা ঘটনায়।

এই মানচিত্র প্রকাশ করা হয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ওয়েবসাইটে। নতুন এই দুই কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলকে ভারতের বাইরে দেখানো হয়েছে হু-র ম্যাপে। যেখানে গোটা ভারতকে গাঢ় নীল রংয়ে সাজানো হয়েছে, সেখানে জম্মু কাশ্মীর ও লাদাখকে ছাই রং দিয়ে চিহ্নিত করা হয়েছে।

উল্লেখ্য এই ছাই রং দিয়েই চিহ্নিত করা হয়েছে আকসাই চিনকেও। তবে সেখানে রয়েছে নীল রংয়ের বর্ডার। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার এই ম্যাপ প্রকাশ করা হয়েছে কোভিড-১৯ ড্যাশবোর্ডে। এই ওয়েবসাইটে কোন দেশ কতটা ক্ষতিগ্রস্ত করোনাতে, তার বিস্তারিত তথ্য দেওয়া হয়েছে। তবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার দাবি রাষ্ট্রসংঘের দেওয়া গাইডলাইন মেনেই তাঁদের ম্যাপ প্রকাশ করা হয়েছে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।