ক্রাইস্টচার্চ: প্রথম ম্যাচে দাপুটে জয় তুলে নিলেও নিউজিল্যান্ড ‘এ’ দলের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় বেসরকারি ওয়ান ডে ম্যাচে হারের মুখ দেখতে হল ভারতকে। হ্যাগলি ওভালে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে নিউজিল্যান্ড-এ দলের কাছে ২৯ রানে পরাজিত হল ইন্ডিয়া-এ।

টস জিতে ভারত অধিনায়ক ময়াঙ্ক আগরওয়াল প্রথমে ব্যাট করার আমন্ত্রণ জানান নিউজিল্যান্ডকে। নির্ধারিত ৫০ ওভারে কিউয়িরা ৭ উইকেটে বিনিময় ২৯৫ রান তোলে। জর্জ ওয়ার্কার অনবদ্য শতরান করেন । ৮ নম্বরে ব্যাট করতে নেমে ম্যাককঞ্চি ঝোড়ো হাফ-সেঞ্চুরি করেন। ইশান পোড়েল নজর কাড়া বোলিং করেন ভারতের হয়ে।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে ভারতীয় দল ৫০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ২৬৬ রানের বেশি তুলতে পারেনি। ক্রুনাল পান্ডিয়া হাফ-সেঞ্চুরি করলেও দলকে জয় এনে দেওয়ার পক্ষে যথেষ্ট ছিল না তাঁর প্রয়াস। ময়াঙ্ক আগরওয়াল, ঈশান কিষাণ, বিজয় শংকররা সেট হয়েও উইকেট দিয়ে আসেন। যার ফল ভুগতে হয় দলকে।

নিউজিল্যান্ডের হয়ে ওয়ার্কার ১৩৫ রান করে আউট হন। ১৪৪ বলের ইনিংসে তিনি ১২টি চার ও ৬টি ছক্কা মারেন। ম্যাককঞ্চি ৮টি বাউন্ডারির সাহায্যে ৫৪ বলে ৫৬ রান করে সাজঘরে ফেরেন। ৩৩ রানের কার্যকরী যোগদান রাখেন জিমি নিশাম। ইশান পোড়েল ৫০ রানের বিনিময়ে ৩টি উইকেট দখল করেন। ২টি উইকেট নিলেও মহম্মদ সিরাজ ১০ ওভারে ৭৩ রান খরচ করেছেন। ১টি করে উইকেট। নিয়েছেন অক্ষর প্যাটেল ও ক্রুনাল পান্ডিয়া।

ভারতের হয়ে ওপেন করতে নেমে ব্যর্থ হন পৃথ্বী শ। তিনি ২ রান করে আউট হন। অপর ওপেনার ময়াঙ্ক আগরওয়াল ৩৭ রান করে সাজঘরে ফেরেন। ঋতুরাজ গায়কোয়াড় ১৭, সূর্যকুমার যাদব ২০ রান করে ক্রিজ ছাড়েন। ইশান কিষাণ ৪৪ ও বিজয় শংকর ৪১ রানের যোগদান রাখেন। ক্রুনাল পান্ডিয়া দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৫১ রান করেন। অক্ষর প্যাটেল ও রাহুল চাহারের অবদান যথাক্রমে ২৪ ও ১২ রান। জেমিসন, ডাফি ও নিশাম ২টি উইকেট নেন। এই জয়ের ফলে তিন ম্যাচের সিরিজে ১-১ সমতা ফেরাল নিউজিল্যান্ড।