সিডনি: যে রকম দাপটের ব্যাট করছিলেন, তাতে কেরিয়ারের প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরি প্রায় নিশ্চিত দেখাচ্ছিল৷ হঠাৎই ছন্দপতন৷ নাথান লায়নের বলে মনোসংযোগ খুইয়ে স্টার্কের হাতে ধরা পড়তেই বিষন্ন মনে সাজঘরের পথে হাঁটা লাগাতে হয় নবাগত ভারতীয় ওপেনার ময়াঙ্ক আগরওয়ালকে৷

আরও পড়ুন: লোকেশের উইকেট হারালেও লাঞ্চে শক্ত ভিতে ভারত

ঠিক যেন বক্সিং ডে টেস্টের চিত্রনাট্য ফিরে এল সিডনিতে৷ মেলবোর্নে অভিষেক টেস্টের প্রথম ইনিংসে ৭৬ রানের দুরন্ত ইনিংস খেলে আউট হয়েছিলেন আগরওয়াল৷ সেবারও তাঁর ব্যাট থেকে শতরান আশা করছিল সমর্থকরা৷ কেরিয়ারের প্রথম টেস্ট ইনিংসে একটু সতর্ক দেখালেও এবার তুলনায় আগ্রাসী ব্যাটিং করেন কর্ণাটকী তারকা৷ এমসিজি’তে ১৬১ বলের ইনিংসে ৮টি চার ও ১টি ছক্কা মেরেছিলেন ময়াঙ্ক৷ সিডনির প্রথম ইনিংসে আগরওয়াল আউট হন ১১২ বলে ৭৭ রান করে৷ মারেন ৭টি চার ও ২টি ছক্কা৷ সুতরাং কেরিয়ারের প্রথম তিনটি টেস্টে ময়াঙ্কের সংগ্রহ যথাক্রমে ৭৬, ৪২ ও ৭৭৷

আরও পড়ুন: সিডনি টেস্টে টসে জিতে ব্যাট করছে ভারত

আগরওয়াল নিশ্চিত শতরান মাঠে ফেলে এলেও লড়াই জারি রাখেন চেতেশ্বর পূজারা৷ সিরিজের প্রথম তিন ম্যাচে দু’টি সেঞ্চুরি ও একটি হাফসেঞ্চুরি করা চেতেশ্বর সিডনিতেও ইতিমধ্যেই হাফসেঞ্চুরির গণ্ডি টপকে গিয়েছেন৷ ধীরে ধীরে শতরানের পথে পা বাড়াচ্ছেন তিনি৷ চায়ের বিরতিতে পূজারা ব্যাট করছেন ব্যক্তিগত ৬১ রানে৷ ১৩৮ বলের ইনিংসে এপর্যন্ত তিনি মেরেছেন ৭টি বাউন্ডারি৷

আরও পড়ুন: ইতিহাসের হাতছানিতে গা-ভাসাতে চান না বিরাট

পূজারাকে যথাযথ সঙ্গত করছেন দলনায়ক বিরাট কোহলি৷ গ্লেন ম্যাকগ্রার ক্যানসার ফাউন্ডেশনকে সমর্থনে পিঙ্ক স্টিকারের ব্যাট নিয়ে মাঠে নামা কোহলি টি ব্রেকে ২৩ রানে অপরাজিত রয়েছেন৷ ৫৬ বলের ইনিংসে বিরাট ৪টি বাউন্ডারি মারেন৷ তার আগে দিনের শুরুতে লোকেশ রাহুল ৯ রান করে হ্যাজেলউডের বলে আউট হন৷

আরও পড়ুন: নেটে কোহলিকে বল করলেন দুই পাক পেসার

দিনের দ্বিতীয় সেশনের পর ভারত ৫২ ওভারে ২ উইকেট হারিয়ে ১৭৭ রান তুলেছে৷ অর্থাৎ লাঞ্চের পর থেকে চায়ের বিরতি পর্যন্ত সময়ে ২৮ ওভার ব্যাট করে ভারত ১টি উইকেট খুইয়ে ১০৮ রান যোগ করেছে৷