কলকাতা: দুর্গা পূজা কমিটিগুলিকে কেন ইনকাম ট্যাক্স নোটিশ দেওয়া হচ্ছে, তার প্রতিবাদ জানিয়েই ধর্নায় বসেছে তৃণমূল। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশেই চলছে সেই ধর্না। এরই মধ্যেই তৃণমূলের দাবি উড়িয়ে আয়কর দফতর জানিয়েছে যে তারা এরকম কোনও নোটিশ দেয়নি। সেই বিজ্ঞপ্তির পাল্টা হিসেবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দাবি করলেন, যে আয়কর দফতর আসলে ভুল বোঝাচ্ছে।

মঙ্গলবার দুপুরে আয়কর দফতর নোটিশ দেওয়ার পর রাতেই ফেসবুকে পোস্ট করেন মমতা। সেখানে তিনি উল্লেখ করেছেন, গত বছর পুজো কমিটিগুলোকে নোটিশ পাঠানো হয়েছিল। যাতে বলা হয়েছিল ঢাকি, পুরোহিত এবং গ্রামের শিল্পীদের টাকা দেওয়ার সময় যেন টিডিএস কেটে নেওয়া হয়।

এদিন ইনকাম ট্যাক্স বিভাগ তাদের বিজ্ঞপ্তিতে বলেছিল যে, এবছর তারা কোনও নোটিশ দেয়নি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, এই কথাটা কিছুটা ঠিক। কারণ এবছর পুজো এখনও হয়নি। পুজো হলে তবেই ট্যাক্সের নোটিশ আসবে। তাই এবছর এখনও কোনও নোটিশ আসেনি। তাই মমতার দাবি, কর দফতরের এই প্রেস বিজ্ঞপ্তি ‘মিসলিডিং’।

তিনি মনে করেন, এই ধরনের বিজ্ঞপ্তি দিয়ে আসলে সাধারণ মানুষকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা চলছে। পাশাপাশি বাংলার সংস্কৃতির উপর আক্রমণ বলেও মন্তব্য করেছেন মমতা।

এদিন দফতরের তরফ থেকে এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ‘সংবাদমাধ্যমের রিপোর্টে বলা হচ্ছে যে কলকাতার দুর্গা পূজা কমিটিগুলিকে ইনকাম ট্যাক্স নোটিশ দেওয়া হয়েছে। কিন্তু এই রিপোর্ট সম্পূর্ণ ভুল। এটাই সত্যি যে, দুর্গা পূজা কমিটি ফোরামে এবছর কোনও নোটিশ দেওয়া হয়নি।

মঙ্গলবার সুবোধ মল্লিক স্কোয়ারে সকাল ১০টা থেকে অবস্থানে বসেছে তারা৷ গত রবিবারই এই কর্মসূচীর কথা ফেসবুকে জানিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷

আয়কর দফতরের তরফে পুজো কমিটিগুলিকে নোটিশ ধরানোর ঘটনার প্রথম দিন থেকেই গর্জে উঠেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রবিবার সোশ্যাল মিডিয়ায় তিনি লিখেছিলেন, দুর্গাপুজো জাতীয় উৎসব। তার জন্য তিনি গর্বিত। অথচ পুজো কমিটির উপর আয়করের নামে আর্থিক বোঝা চাপানো হচ্ছে। ক্ষমতায় বসেই তাঁর সরকার গঙ্গাসাগর মেলার তীর্থযাত্রীদের উপর বসানো কর তুলে দিয়েছে।