নয়াদিল্লি: বিভিন্ন ক্ষেত্রে অর্থনৈতিক রিপোর্ট যেখানে হতাশ করছে সেখানে আয়কর রিটার্নে রীতিমতো ভাল সাড়া পাওয়া গেল৷ আয়কর দফতরের আধিকারিকরা জানিয়েছে,আয়কর রিটার্ন জমা দেবার শেষ দিনে ৪৯ লক্ষ ২৯ হাজার রিটার্ন জমা পডেছে৷ যা দৈনিক রিটার্ন জমার ক্ষেত্রে বিশ্বরেকর্ড বলে বলে মনে করছেন তাঁরা।

সেন্ট্রাল বোর্ড অফ ডিরেক্ট ট্যাক্সেস (সিবিডিটি) এর পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, শুধু গত ৩১ অগস্ট অর্থাৎ শেষ রিটার্ন ফাইলের দিনে প্রায় ৫০ লক্ষ রিটার্ন ধরলে শেষ পাঁচ দিনে প্রায় দেড় কোটি আয়কর রিটার্ন জমা পড়েছে দফতরের সার্ভারে।

তথ্য জানাচ্ছে , এই ক’দিনের হিসেব থেকে লক্ষ্য করা গিয়েছে প্রতি সেকেন্ডে সর্বাধিক ১৯৬টি, প্রতি মিনিটে ৭,৪৪৭টি এবং ঘণ্টায় ৩,৮৭,৫৭১ টি রিটার্ন জমা এই সার্ভারে। যার ফলে সামগ্রিক হিসেবে চলতি অর্থবর্ষে আয়কর রিটার্ন জমার পরিমাণ ২০১৮-১৯ অর্থবর্ষের ৫.৪২ কোটি থেকে ৪ শতাংশ ছাপিয়ে পৌঁছে গিয়েছে ৫.৬৫ কোটিতে। এর পাশাপাশি জানা গিয়েছে, চলতি বছরে আয়কর দফতরের সার্ভার দখল করে নেওয়া হ্যাকারদের ২,২০৫টি চেষ্টাও ব্যর্থ করে দেওয়া হয়েছে।

যেখানে ইতিমধ্যেই জানা গিয়েছে, দেশে আর্থিক বৃদ্ধির হার সাত বছরে সর্বনিম্ন হয়েছে৷ এই বছরের এপ্রিল থেকে জুন ত্রৈমাসিকে যা ৫ শতাংশ হয়েছে৷ উৎপাদন ক্ষেত্রের হাল খারাপ আবার কৃষি ক্ষেত্রও মার খাচ্ছে৷ তারই প্রভাব পড়েছে আর্থিক বৃদ্ধিতে৷এর আগে ২০১২-১৩ অর্থবর্ষের এপ্রিল থেকে জুন ত্রৈমাসিকে বৃদ্ধির হার দাড়িয়েছিল ৪.৯ শতাংশ৷

তাছাড়া রিজার্ভ ব্যাংকের উদ্বৃত্ত সঞ্চয় থেকে ১.৭৬ লক্ষ কোটি কেন্দ্রের কোষাগারে যাওয়ার অনুমতি মিলেছে ৷ আর এমন সিদ্ধান্তের জন্যে মোদী সরকারের বিরুদ্ধে ইতিমধ্যেই সমালোচনার ঝড় তুলেছে বিরোধীরা৷ সেই পরিপেক্ষিতে আয়কর রিটার্ন জমা পড়ার ক্ষেত্রে বিশ্বরেকর্ড অবশ্যই মোদী সরকারের কাছে অর্থনৈাতিক দিক থেকে ইতিবাচক লক্ষণ বলে মনে করছে বিভিন্নমহল৷