স্টাফ রিপোর্টার,কলকাতা: পাড়ায় পাড়ায় দুর্গোৎসবের কাউন্টডাউন শুরু হয়ে গিয়েছে৷ এরই মধ্যে পুজো কমিটির সংগঠন ‘ফোরাম ফর দুর্গোৎসব’কে আয়কর বিভাগের নোটিশ৷ যা নিয়ে সরব হয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷

লোকসভা ভোটের আগে কলকাতার ৪০ টি পুজো কমিটিকে নোটিশ ধরিয়েছিল আয়কর দপ্তর৷ এবার নোটিশ দেওয়া হল পুজো কমিটির সংগঠন ‘ফোরাম ফর দুর্গোৎসব’কে৷ এই কমিটিতে প্রায় ৪০০টি পুজো কমিটি রয়েছে৷ গত জানুয়ারি মাসে যখন পুজো কমিটিকে ডাকা হয়েছিল তখনই আয়কর বিভাগ জানতে পারে দুর্গোৎসবের সংগঠনের কথা৷ তাই এবার পুজো কমিটিগুলোকে আলাদা আলাদা চিঠি না দিয়ে সংগঠনকে চিঠি দেওয়া হয়েছে৷

সেখানে বলা হয়েছে, পুজোর বাজেটে বিভিন্ন খাতে কত খরচ হচ্ছে তার হিসেব রাখতে৷ অর্থাৎ কাকে কত টাকা দেওয়া হচ্ছে তার তথ্য নথিভুক্ত করতে৷ যাতে আয়কর দফতর প্রয়োজনে খতিয়ে দেখতে পারে তারা ইনকাম ট্যাক্স ঠিকঠাক দিচ্ছে কিনা৷

সূত্রের খবর, গত সপ্তাহে ‘ফোরাম ফর দুর্গোৎসব’কে আয়কর বিভাগ নোটিশ দিয়েছে৷ তারপর ওই সংগঠনের পক্ষ থেকে আয়কর ভবনে গিয়ে দেখাও করা হয়েছে৷ সংগঠনের এগজিকিউটিভ কমিটির সদস্য পার্থ ঘোষ স্বীকার কার করে নিয়েছেন যে, তাদের বলা হয়েছে সহযোগিতা করতে৷ পুজোয় যে সব খাতে বেশি টাকা দিতে হয়,তার হিসেব রাখতে৷

অন্যদিকে এই বিষয় সরব হয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ তিনি সোমবার নবান্নে সাংবাদিক বৈঠকে বলেন, কেন পুজো কমিটি আয়কর দেবে, এটা দুর্গা পুজোর অপমান৷ দুর্গাপুজোয় রাজনীতির রং লাগানো নিয়ে বিজেপিকেও পাল্টা আক্রমণ করেন তিনি৷ কয়েক মাস আগে শহরের বড় ৪০টি পুজোর আয়ের উৎস জানতে চেয়ে নোটিশ পাঠিয়েছিল আয়কর দফতর ৷

এদিন সে বিষয়েই মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘‘নির্বাচন এলে তো ওরা শুধু হিন্দু-মুসলিম করে। নির্বাচনের পরে এইসব করে। উৎসব তো উৎসবই। সাধারণ মানুষ দান করেন এখানে। রাজনৈতিক দল চাঁদা তুললে তা আয়কর আওতায় আসে না। তবে পুজো কমিটিরও আয়কর আওতায় থাকা উচিত নয়।’’