লখনউ: চলতি মাসে সন্দীপ কুমারের স্ত্রীর মোবাইলে ব্যাংক থেকে একটি মেসেজ আসে৷ তাতে লেখা, তাঁর অ্যাকাউন্টে তিন হাজার টাকা ক্রেডিট হয়েছে৷ হঠাৎ স্ত্রীর অ্যাকাউন্টে টাকা ঢোকায় সন্দেহ হয় সন্দীপের৷ টাকার উৎস জানতে ব্যাংকে হাজির হন তিনি৷ সেখানে গিয়ে খোঁজ করতেই চোখ কপালে ওঠে৷ জানতে পারেন বিধবা ভাতা প্রকল্প থেকে তিন হাজার টাকা সন্দীপের স্ত্রীর অ্যাকাউন্টে দেওয়া হয়েছে৷ অথচ সন্দীপ এখনও জীবিত৷

এমনটা শুধু সন্দীপের স্ত্রীর সঙ্গে নয় আরও ২১ জন সধবা মহিলার সঙ্গে হয়েছে৷ তাদের প্রত্যেকের অ্যাকাউন্টে তিন হাজার টাকা ক্রেডিট হয়েছে৷ এবং সেই টাকা বিধবা ভাতা প্রকল্পের টাকা৷ বিষয়টি জানতে পেরে উত্তরপ্রদেশের সীতাপুর জেলা প্রশাসন তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে৷ জানানো হয়েছে, কেউ দোষী প্রমাণিত হলে কাউকে রেয়াত করা হবে না৷

ঘটনায় বিস্ময় প্রকাশ করে সন্দীপ জানান, তাঁর স্ত্রী ছাড়া শাশুড়ি ও বৌদি এরকম মেসেজ পায়৷ মেসেজে জানানো হয়, তাদের অ্যাকাউন্টে তিন হাজার টাকা ঢুকেছে৷ পরে ব্যাংকে গিয়ে জানতে পারেন ওটা আসলে বিধবা ভাতা প্রকল্পের টাকা৷ স্বামী মারা গেলে তাঁর বিধবা স্ত্রী এই অর্থ পায়৷ কিন্তু যাদের অ্যাকাউন্টে টাকা ঢুকেছে তাদের প্রত্যেকের স্বামী জীবিত৷ এমনটা হল কী তাই নিয়ে প্রশ্ন তোলেন সন্দীপ৷

সন্দীপ এরপরই বিষয়টি জেলা প্রশাসনকে জানান৷ জেলাশাসক সীতা বর্মা পরে জানান, তদন্ত শুরু হয়েছে৷ কারোর গাফিলতি প্রমাণিত হলে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে৷