স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: নির্ধারিত কর্মসূচী অনুযায়ী এসএসকে-এমএসকে শিক্ষক শিক্ষিকাদের মিছিল৷ রবিবাসরীয় দুপুরে সেই মিছিল ঘিরে শহরে উত্তেজনা৷ পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তি৷ আহত বেশ কয়েকজন৷

এদিন রাজ্যের এসএসকে ও এমএসকে শিক্ষক শিক্ষিকাদের একটি বিশাল মিছিল শিয়ালদহ থেকে বের হয়৷ কয়েক হাজার শিক্ষক শিক্ষিকা ওই মিছিলে সামিল হয়৷ রানি রাসমনি অ্যাভিনিউয়ের কাছে ওই মিছিল পুলিশ আটকে দেয়৷ আন্দোলনকারীরা তখন গার্ডরেল ভেঙে এগোনোর চেষ্টা করে৷ পুলিশ বাঁধা দিলে তাদের সঙ্গে ধস্তাধস্তি হয়৷ তাতে বেশ কয়েকজন আন্দোলনকারী আহত হয়েছে বলে সংগঠনের দাবি৷ এরপর তারা রাস্তার ওপর বসে পড়েন৷ যদিও সেই সময় ঘটনাস্থলে থাকা বিশাল পুলিশবাহিনী পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসে৷

এর আগেও এসএসকে ও এমএসকে শিক্ষক শিক্ষিকাদের আন্দোলনে উত্তাল হয়ে ওঠে সল্টলেক৷ মোতায়েন করা হয়েছিল RAF ও বিশাল পুলিশ বাহিনী৷ মোতায়েন ছিল মহিলা পুলিশও৷ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল করুণাময়ী থেকে বিকাশ ভবনগামী উভয় রাস্তা৷ সল্টলেকের বিধান মূর্তির পাদদেশে ধর্ণায় বসেছিলেন৷ পরে শিক্ষামন্ত্রীর আশ্বাসে সেই ধর্ণা উঠে যায়৷

যে সব দাবিতে এই আন্দোলন তা হল, ২০১৩ সালের মন্ত্রিসভার সিদ্ধান্ত অনুসারে শিশু শিক্ষা কেন্দ্র, মাধ্যমিক শিক্ষা কেন্দ্র কে প্রাথমিক ও মধ্যশিক্ষা পর্ষদের অধীনে অনুমোদন দিতে হবে৷ এবং শিক্ষা দফতরকে পুরোপুরি দায়িত্ব তুলে নিতে হবে৷ সমগ্র শিক্ষা অভিযানের নিয়ম অনুযায়ী শিশু শিক্ষা, মাধ্যমিক শিক্ষা কেন্দ্রের শিক্ষক শিক্ষিকা ও সুপারভাইজারদের ২০১৮ সালের ১ এপ্রিল থেকে বেতন বৃদ্ধি কার্যকর করতে হবে এবং বেতন পরিকাঠামো চালু করতে হবে৷শিক্ষক শিক্ষিকা ও সুপারভাইজারদের পেনশন ব্যবস্থা চালু করতে হবে৷ এস এস কে, এম এস গুলিকে নবম ও দশম শ্রেণী খোলার ব্যবস্থা করতে হবে৷ সমস্ত শিক্ষক শিক্ষিকাদের নিয়োগের অনুমোদন কর্মসংস্থান পরিচয়পত্র দিতে হবে৷ অবিলম্বে শূণ্যপদে নিয়োগের ব্যবস্থা করতে হবে৷