হাজারো কাজের সুযোগ থাকা সত্বেও ক্রমাগত বেড়েছে বেকারত্ব৷ আবার, অনেকে সঠিক অর্থে বেকার নন, আংশিক বেকার৷ বুঝলেন না, তাই তো? রির্পোটের তথ্য জানাচ্ছে, ভারতে ৮২ শতাংশ পুরুষ ও ৯২ শতাংশ মহিলা প্রতিমাসে আয় করেন দশ হাজারের কম টাকা৷ ভারতে গত ২০ বছরে তরতরিয়ে বেড়েছে বেকারের সংখ্যা৷ পলিশি মেকারদের জন্য বিষয়টি চ্যালেঞ্জের সমান৷

ভারতে চাকরির বাজার সম্পর্কিত বেশ কিছু তথ্য সামনে এনেছে রির্পোটের তথ্য৷ যা তুলে ধরেছে বেকারত্বের ভয়াবহতাকে৷ ইতিহাস ঘাঁটলে দেখা যাবে কর্মসংস্থান হয়েছে মাত্র এক শতাংশ মানুষের৷ ভারতের বেশীরভাগ রোজগেরে মানুষের বেতন দশ হাজারের কম৷ সপ্তম পে কমিশনের নির্দেশিকা অনুয়ায়ী, কর্মীদের ন্যূনতম বেতন হতে হবে ১৮,০০০ টাকা৷ সুতরাং রির্পোটের তথ্য অনুযায়ী দেখা যাচ্ছে জীবন নির্ধারণের জন্য ন্যূনতম বেতনটুকুও পান না কর্মীরা৷

আর, সেখান থেকেই উঠে আসে সরকারি চাকরির অন্বেষণের বিষয়টি৷ রির্পোট থেকে সামনে এসেছে আরও একটি সত্য৷ রির্পোটের তথ্য অনুযায়ী, ভারতের সমস্যা বেকারত্ব নয়, আংশিক বেকারত্ব ও কম বেতন৷ অনেকেই আবার চাকরির উপযুক্ত ও যোগ্য৷ কিন্তু, সঠিক সুযোগ ও বেতনের অভাবেই আজ অন্ধকারে বহু প্রতিভা৷ পুরো ভারত জুড়েই বিভিন্ন সময়ে দেখা গিয়েছে বেকারত্বের গ্রাফের ওঠানামা৷ তবে, বেকারত্বের তীব্রতা স্পষ্টভাবে দেখা গিয়েছে উত্তরের রাজ্যগুলিতে৷