করাচি: পাকিস্তানি সেনার অত্যাচারের প্রতিবাদে এবার পথে নামল কমপক্ষে হাজার দুয়েক সাধারণ মানুষ৷ পাক অধিকৃত গিলগিট-বালতিস্তানের সাধারণ মানুষের উপর অকথ্য অত্যাচার শুরু করেছে পাক নিরাপত্তা বাহিনীর জওয়ানরা৷ পাক সেনার অত্যাচারের বিরুদ্ধে মুখ খোলার জেরে সম্প্রতি বালতিস্তানের ৫০০ জনকে গ্রেফতার করেছে পাক সেনাবাহিনী৷ বালতিস্তানের বাসিন্দাদের দাবি, পাক সরকার তাঁদের রাজনৈতিক উদ্দেশ্য চরিতার্থ করতেই তাঁদের উপর অত্যাচার শুরু করেছে৷ পাক সেনার অত্যাচারের প্রতিবাদ করলেই তাঁদের গ্রেফতারও করা হচ্ছে৷ শনিবার পাক সেনার এই অত্যাচারের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ালেন কখনও ‘পাকিস্তানের সঙ্গে থকতে চাই না’ বলে বিক্ষোভ করছেন সেখানকার মানুষ৷ কখনও তাঁদের নিরপেক্ষভাবে ভোট দিতে দেওয়া হচ্ছে না বলে অভিযোগ করছেন তাঁরা৷ এমনকি, পাক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ  শরিফের দল  তাঁদের দিয়ে জোর করে ভোট দেওয়াচ্ছে বলেও অভিযোগ করছেন তাঁরা৷ কিন্তু, পাক অধিকৃত কাশ্মীরের মানুষের অসুবিধা নিয়ে কোনও মাথাব্যথাই নেই পাকিস্তানের৷

উন্নয়নের স্বপ্ন দেখিয়ে পাক অধিকৃত কাশ্মীর ও গিলগিট-বালতিস্তান অঞ্চলে নিজেদের স্বার্থ চরিতার্থ করছে চিন ও পাকিস্তান৷ উন্নয়নের স্বপ্ন দেখিয়ে এই দুই অঞ্চলে শুরু হয়েছিল চিন-পাকিস্তান ইকনমিক করিডোর (সিপিইসি)৷ তবে কিছু দিন যেতে না যেতেই এই মাল্টি-বিলিয়ন ডলার প্রোজেক্ট নিয়ে চূড়ান্ত ক্ষুব্ধ অধিকৃত কাশ্মীর এবং বালতিস্তানের অধিবাসীরা৷ প্রদেশের প্রায় হাজার দুয়েক সাধারণ মানুষ৷ তাঁদের দাবি, অবিলম্বে পাক সেনার হাতে বন্দি ৫০০ জনকে মুক্তি দিক সেদেশের সরকার৷ যদিও, পাক প্রশাসনের পক্ষ তেকে দাবি করা হয়েছে, গিলগিট-বালটিস্তান, আস্তোরা বাসিন্দারা নাকি ‘পাক-বিরোধী’ স্লোগান দিয়েছেন৷ ফলে, দেশ বিরোধী কাজ করার শিক্ষা দিতেই পাক সেনাবাহিনীর জওয়ানরা গিলগিট-বালটিস্তান প্রদেশের বাসিন্দাদের গ্রেফতার করা হচ্ছে৷

In-Gilgit,-people-take-to1এর আগেও একাধিকবার গিলগিট-বালটিস্তানের বাসিন্দারা পাকিস্তানের সঙ্গে না  থকতে চেয়ে বিক্ষোভ দেখিয়েছেন৷ তাঁদের অভিযোগ, গিলগিট-বালটিস্তান প্রদেশের বাসিন্দাদের জন্য নূন্যতম পরিষেবা নিয়ে বিন্দুমাত্র মাথাব্যথাই নেয় পাক সরকারের৷ কিন্তু, উন্নয়নের স্বপ্ন দেখিয়ে পাক অধিকৃত গিলগিট-বালতিস্তান অঞ্চলে নিজেদের স্বার্থ চরিতার্থ করছে পাকিস্তান৷ উন্নয়নের স্বপ্ন বিলিয়ে এই অঞ্চলে শুরু হয়েছিল চিন-পাকিস্তান ইকনমিক করিডোর৷ তবে, তা এখন মুখ থুবড়ে পড়তে চলেছে৷

সম্প্রতি, পাক অধিকৃত  গিলগিট-বালটিস্তানের বাসিন্দাদের ওপর পুলিশি অত্যাচারের বিষয়ে একটি রিপোর্ট পেশ করেছে মানবাধিকার কমিশন৷ ওই রিপোর্টে  পুলিশ প্রশাসনের অত্যাচার সহ্য করেও গিলগিট-বালটিস্তানের বাসিন্দারা বসবাস করছেন, সে বিষয়েও বিস্তারিত তথ্য দেওয়া হয়েছে৷ যদিও, ওই সমস্ত রিপোর্টের সত্যতা অস্বীকার করেছে পাক সরকার৷

শুক্রবার অধিকৃত কাশ্মীর ভারতেরই অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ বলে সংসদ ভবনে সর্বদলীয় বৈঠকে স্পষ্ট জানাল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী৷ শুধু তাই নয়, এই অধিকারের কথা ভারত যে বিশ্বের দরবারেও বরাবরের মতো তুলে ধরবে সে কথা দৃঢ়তার সঙ্গে জানাতে ভোলেননি তিনি৷ বৈঠকশেষে তাঁর সঙ্গে সহমত পোষণের জন্য বাদবাকি রাজনৈতিক দলগুলিকেও ধন্যবাদ জানান প্রধানমন্ত্রী৷আর প্রধানমন্ত্রীর এই মন্তব্যের পরপরই গিলগিট-বালটিস্তান প্রদেশের বাসিন্দাদের পাক সেনার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ৷মনে করছেন কূটনীতিবীদরা৷