রায়পুর: দুই কিশোরীকে তুলে নিয়ে গিয়ে গণধর্ষণের অভিযোগে সাত জনকে গ্রেফতার করল ছড়িশগড় পুলিশ৷ ঘটনাটি ঘটেছে ছড়িশগড় ও মধ্যপ্রদেশের সীমান্তবর্তী কোরিয়া জেলায়৷ অভিযোগ, ১৫ দিন ধরে নয় যুবক মিলে ওই দুই কিশোরীকে লাগাতার গণধর্ষণ করে৷ পরে নির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ সাত জনকে গ্রেফতার করেছে৷ বাকি দু’জনের খোঁজ করা হচ্ছে৷

পুলিশ জানিয়েছে, ধৃতরা হল অভিজিত পাল(২০), আসরাফ আলি(২৩), মনোজ কুমার(২৮), হেমরাজ পানিকা(২০), অবনীশ(২৮), জিতেন্দ্র কুমার রাই(২৬) এবং রাকেশ কুমার(২৩)৷ এদের মধ্যে অভিজিত এক কিশোরীর পূর্বপরিচিত৷

ঝাড়খন্ডের বাসিন্দা ওই কিশোরীকে বিয়ে করবে বলে খোংগাপানি এলাকার একটি শুনশান জায়গায় নিয়ে যায়৷ কিশোরীর সঙ্গে তার বন্ধুও ছিল৷ তাকেও সঙ্গে করে নিয়ে যায় অভিজিত৷ সেখানে অভিজিতের আরও আট বন্ধু হাজির হয়৷ এরপর নয়জন মিলে ১৫দিন ধরে দুই কিশোরীকে গণধর্ষণ করে৷

কোরিয়া জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নিবেদিতা শর্মা জানিয়েছেন, গত ৪ মার্চ অভিজিত বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ওই কিশোরীকে ডাকে৷ তাকে কোরিয়া থেকে নিয়ে যায় লেদরি ও বিজুরি গ্রামে৷ এই ১৫দিনে অভিজিত ও তার আট বন্ধুরা মিলে তাকে গণধর্ষণ করে৷ ওই কিশোরীর সঙ্গে এক বন্ধুও গিয়েছিল৷ তাকেও তুলে নিয়ে যায় ওরা৷ সোমবার গুরুতর আহত অবস্থায় তাদের বিজুরি রেল স্টেশনের কাছে উদ্ধার করা হয়৷

এই ঘটনায় পুলিশ সাত জনকে গ্রেফতার করেছে৷ বাকি দু’জন পলাতক৷ তাদের খোঁজ শুরু করেছে পুলিশ৷ ধৃতদের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির গণধর্ষণ, অপহরণ, জোর করে আটকে রাখা, বিয়ের জন্য বাধ্য করা ইত্যাদি এবং পসকো ধারায় মামলা দায়রে করেছে৷