তিমিরকান্তি পতি, বাঁকুড়া: দলমার দামালদের ‘তাণ্ডবলীলা’ অব্যাহত বাঁকুড়ায়। জেলার দক্ষিণের পিরলগাড়ি রেঞ্জের সিমলাপাল ও সারেঙ্গা বনাঞ্চল এলাকায় গত তিন ধরে দাপিয়ে বেড়াচ্ছে কয়েকটি শাবক সহ ২৯ টি হাতির দল। চরম আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছেন এলাকার মানুষ।

স্থানীয় সূত্রে খবর, গত কয়েক দিন আগে ঐ হাতির দলটি সারেঙ্গার জঙ্গল লাগোয়া হ্রদ সারেঙ্গা গ্রামে ঢুকে পড়ে। কয়েকটি বাড়ি ভাঙচুরের পাশাপাশি প্রায় ৫০ বিঘা জমির আলু নষ্ট করে ফেলে। বনদফতর ঐ হাতির দলটি হুলা পার্টির সাহায্য নিয়ে অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে তারা সিমলাপাল ও সারেঙ্গা রেঞ্জের পার্শ্বলা, হাজার চুরানব্বই, গুড়িয়াঘাটি, ভাঙ্গাদেওলী, চুয়াগাড়া, মৌকুড়া, বড়দি এলাকার জঙ্গলে আশ্রয় নেয়। এই অবস্থায় চরম আতঙ্কে গ্রামবাসীরা।

বন দফতরের পক্ষ থেকে হাতির দলটিকে অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে বলে জানানো হয়েছে। প্রদ্যোৎ কুমার সিংহমহাপাত্র নামে আর এক গ্রামবাসী বলেন, আমরা ভীষণ আতঙ্কে আছি। হাতির ভয়ে রাতে বাড়ির বাইরে বেরোনোটাই দূষ্কর হয়ে পড়েছে। জমিতে আলু সহ অন্যান্য সবজি নষ্টের পাশাপাশি বাড়ির লাগোয়া জমিতে লাগানো পেঁপে, কলা গাছ ভেঙে তছনছ করে দিয়েছে বলে তিনি জানান।

স্থানীয় বাসিন্দা অগ্নি কুমার মাহাতো, শান্তনু সিংহমহাপাত্ররা বলেন, দু’টি দলে ভাগ হয়ে হাতির দলটি এলাকায় তাণ্ডব চালাচ্ছে। জমিতে চাষ করা আলু, সরিষা সহ অন্যান্য শাক সবজি নষ্ট করার পাশাপাশি লোকালয়ে হাতির দলটি ঢুকে পড়ে বাড়িতে রাখা ধানও খেয়ে ফেলছে। এই ঘটনায় তাঁরা যথেষ্ট আতঙ্কিত এবং সরকারি ক্ষতিপূরণের দাবি জানিয়েছেন তাঁরা।

পিরলগাড়ি রেঞ্জের বনাধিকারিক বিউটি মল্লিক সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, হাতির দলটি অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছে। অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে হাতির দলটিকে যাতে কেউ উত্যক্ত না করেন সেই বিষয়ে স্থানীয় বাসিন্দাদের কাছে আবেদন জানিয়েছেন তিনি।