তিমিরকান্তি পতি, বাঁকুড়া: ক্রমশ জাঁকিয়ে বসছে করোনার সংক্রমণ। এবার বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের কর্মরত এক চিকিৎসক দ্বিতীয় বার করোনা আক্রান্ত হলেন। হাসপাতাল সূত্রে এই খবর জানা গিয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত দু’মাস আগে বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের এই চিকিৎসক প্রথম করোনায় আক্রান্ত হন। চিকিৎসার পর তিনি সুস্থ হয়ে ফের কাজে যোগ দেন। ফের তিনি অসুস্থ বোধ করায় মঙ্গলবার নতুন করে তাঁর লালার সংগ্রহ করা হয়। পরীক্ষা করা হয়। রিপোর্ট কোভিড পজিটিভ এসেছে।

ওই চিকিৎসকের করোনা আক্রান্ত হয়ে সুস্থ হয়ে যাওয়ার পর ফের নতুন করে করোনা আক্রান্ত হওয়ার ঘটনায় হাসপাতাল জুড়ে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। হয়। অন্যদিকে, একই সঙ্গে এদিন বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে নতুন করে করোনা আক্রান্ত হলেন পাঁচ জন।

এদের মধ্যে তিন জন জুনিয়র চিকিৎসক, একজন নার্স ও একজন প্রসূতি আছেন বলে জানা গিয়েছে। আবার তিনজন জুনিয়র চিকিৎসকের মধ্যে একজন প্রসূতি বিভাগে কর্মরত ছিলেন। স্বাস্থ্য দফতরের পক্ষ থেকে প্রত্যেকের চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

অন্যদিকে, অতিমারী থেকে রেহাই পেতে বারবার উঠে এসেছে হার্ড ইমিউনিটির কথা। অর্থাৎ বেশিরভাগ মানুষের শরীরে আ্যান্টিবডি ঐরি হয়েই একদিন শেষ হয়ে যাবে করোনা। যদিও সেই প্রক্রিয়া অনেক কঠিন ও সময় সাপেক্ষ। তবে পশ্চিমবঙ্গে একটি সার্ভেতে দেখ যাচ্ছে বহু মানুষের শরীরে ইতিমধ্যেই তৈরি হয়ে গিয়েছে অ্যান্টিবডি। ‘সেরো পজিটিভিটি টেস্টে’ই উঠে এসেছে এই তথ্য।

জুলাই ও অগস্ট মাস জুড়ে এই সার্ভে চালানো হয়। থাইরোকেয়ারের মাধ্যে দেশ জুড়ে সেই সার্ভে চলে। সেখানে কলকাতা ৯০৪১ জন ও রাজ্য থেকে ২২,৫৮৯ জন ছিল। ব্লাড টেস্টের মাধ্যমেই এই সেরোলজি টেস্ট হয়েছে। HIV, HBV, HCV টেস্টের ক্ষেত্রেও এই পরীক্ষা করা হয়।

দেখা গিয়েছে রাজ্যের ২৩ শতাংশ মানুষের শরীরে ও কলকাতা ২৭ শতাংশ মানুষের শরীরে ইতিমধ্যেই কোভিডের অ্যান্টিবডি তৈরি হয়ে গিয়েছে। দার্জিলিংয়ে ৪১ শতাংশ মানুষের শরীরে রয়েছে অ্যান্টিবডি। রাজ্যের মধ্যেই দার্জিলিংয়েই এই হার সবথেকে বেশ, আর সবথেকে কম বাঁকুড়ায়।

মাত্র ৬.৩ শতাংশের শরীরে অ্যান্টিবডি রয়েছে। কলকাতায় মূলত কর্পোরেট অফিসের কর্মী, হাউজিং কমপ্লেক্সের বাসিন্দাদের উপর এই সার্ভে চালানো হয়। পরিসংখ্যান বলছে, প্রত্যেক ৪ জনের মধ্যে একজনের শরীরে অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে কলকাতায়।

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।