ইসলামাবাদ: কি বলবেন একে? বিড়াল তপস্বী? একদিকে যখন সংখ্যালঘু হিন্দুদের ক্ষোভ পাকিস্তান জুড়ে বাড়ছে, তখনই শিব মন্দির দর্শন করলেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান৷ পাকিস্তানের সিন্ধ প্রদেশের একটি শিব মন্দিরে বুধবার যান তিনি৷

দীর্ঘদিন ধরেই পাকিস্তানের হিন্দুরা এই দাবি জানিয়ে আসছিলেন৷ বেশ কিছু মন্দিরে মাদ্রাসাও তৈরি হয়েছে গত কয়েক বছরে৷ অনেক মন্দিরের জমি জবরদখল হয়েছে৷ সেখানে ইমরানের শিব মন্দির দর্শন রাজনীতির জন্য বলেই মনে করা হচ্ছে৷

বুধবার সিন্ধ প্রদেশের থারপরকর জেলার শিব মন্দিরে পা রাখেন ইমরান৷ সেখানকার সংখ্যালঘু হিন্দু সম্প্রদায়ের সাথে কথা বলেন৷ জিও নিউজ জানিয়েছে, সেখানে একটি জনসভা করেন পাক প্রধানমন্ত্রী৷

আরও পড়ুন : কাশ্মীর ইস্যু ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়: বাংলাদেশ বিদেশমন্ত্রক

উল্লেখ্য, এমন একটি সম্প্রদায়ের সামনে এদিন বক্তব্য রাখেন ইমরান, যে সম্প্রদায় প্রায় বিলুপ্ত হতে বসেছে৷ কারণ গত দুদশকে দুই শতাংশেরও বেশি জনসংখ্যা কমেছে এই হিন্দুদের৷ ইতিমধ্যেই দেশ জুড়ে হিন্দু ও শিখ সম্প্রদায়ের মধ্যে সরকার বিরোধী বিদ্রোহ মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে৷ সংখ্যালঘুদের মানবাধিকার ভঙ্গ করা হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে বারবার৷

এদিকে, এর আগে জানা গিয়েছিল পাকিস্তানে থাকা বহু হিন্দু মন্দির মেরামত করার সিদ্ধান্ত নেয় পাকিস্তান সরকার৷ সিয়ালকোটে রয়েছে একটি জগন্নাথ মন্দির। এছাড়া ওই সিয়ালকোটেই ১০০০ বছরের পুরনো একটি শিবমন্দির পুনর্নির্মাণ করা হবে। বাবরি মসজিদ ভাঙার ঘটনার পর ওই মন্দিরে দুষ্কৃতী হানা হয়। তারপর থেকেই হিন্দুরা আর কখনও ওই মন্দিরে যাননি বলে জানা যায়। এছাড়া পাকিস্তানের আদালতের নির্দেশে পেশোয়ারে নতুন করে খোলা হচ্ছে গোরক্ষনাথ মন্দির। সেটি হেরিটেজ সাইট বলেও ঘোষণা করা হবে।

পাকিস্তান জুড়ে হিন্দুদের বিক্ষোভ নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পও৷ গত মাসেই ইমরানের সঙ্গে একটি সাক্ষাতে এই প্রসঙ্গে কথাও হয় বলে খবর৷ এর আগে পাকিস্তানে দুই হিন্দু তরুণীকে তুলে নিয়ে গিয়ে ধর্মান্তরিত করার অভিযোগ ওঠে৷ ভারতীয় দূতাবাসের কাছে সেই বিষয়ে রিপোর্টও চান তৎকালীন বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ৷

আরও পড়ুন : কাশ্মীর ইস্যুতে কোণঠাসা পাকিস্তান, এবার বার্তা ফ্রান্সের

পাকিস্তানের সিন্ধ প্রদেশে দুই নাবালিকাকে কিছু লোক তুলে নিয়ে যায়৷ জানা যায়, ১৩ বছরের রবিনা ও ১৫ বছরের রীনাকে সিন্ধ প্রদেশের গোতকি জেলার বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়৷ অপহরণকারীরা প্রভাবশালী বলে পুলিশের বিরুদ্ধে নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগ ওঠে৷ এই ঘটনার পর একটি ভিডিও ভাইরাল হয়ে যায়৷ যেখানে দেখা যায়, ওই দুই নাবালিকার মুসলিম মতে বিয়ে হচ্ছে৷ পরে আরও একটি ভিডিওতে স্পষ্ট হয় ওই দুই নাবালিকাকে মুসলিম ধর্মে ধর্মান্তরিত করা হয়েছে৷

এই ধরণের একাধিক ঘটনার পরে পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের শিব মন্দির দর্শন ও হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষদের সাথে কথা বলাকে কটাক্ষ করেছেন অনেকেই৷