ইসলামাবাদ: আবারও অকারণে ভারতের উপর দোষ চাপানোর চেষ্টা পাকিস্তানের। পাকিস্তানে নাকি যত ধরনের অপরাধ হচ্ছে, তার দায় ভারতের তথা ভারতীয় সিনেমা বা বলিউডের।

সম্প্রতি ইউটিউবে এই প্রসঙ্গে একটি বক্তব্য পেশ করেছেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। তিনি বলেছেন, পাকিস্তানে অপরাধের ঘটনা ক্রমশ বেড়ে চলেছে। বিশেষত সেক্স ক্রাইম আর ড্রাগ অ্যাবিউজের জন্য মোবাইল ফোনকে দায়ী করেছেন ইমরান খান। এছাড়া, তাঁর দাবি বলিউড ও হলিউডের ছবিতে যে ‘কনটেন্ট’ থাকছে, সেগুলো নাকি পাকিস্তানের জন্য আরও ক্ষতিকর হয়ে উঠছে। তার জন্যই নাকি বাড়ছে এই ধরনের অপরাধ।

তিনি বলেন, ‘মোবাইল ফোনের জন্য পাকিস্তান বড় চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছে। যেসব কনটেন্ট কোনোদিন শিশুদের হাতে পৌঁছনোরই কথা নয়, সেগুলোই মোবাইলের মাধ্যমে আজ পৌঁছে যাচ্ছে।’ তাঁর দাবি, এই কারণেই স্কুলের মধ্যে ড্রাগ ঢুকে পড়ছে। পাকিস্তানে যে চাইল্ড পর্নোগ্রাফি ছড়িয়ে পড়েছে, সেটা ক্ষমতায় আসার পর জেনেছেন বলে উল্লেখ করেন ইমরান।

এদিকে, এই পাক প্রধানমন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানানো হচ্ছে ভারতে। সাংহাই কো-অপারেশন অর্গানাইজেশনের সামিটে যোগ দিতে ইমরানকে আমন্ত্রণ জানানো হবে বলে খবর।

গত সপ্তাহে এমনটাই জানিয়েছে ভারতীয় বিদেশ মন্ত্রক। এই প্রসঙ্গে ভারতীয় বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র রবিশ কুমার বলেন, ‘‘৮ দেশ ও ৪ পর্যবেক্ষককে আমন্ত্রণ জানানো হবে’’।

সাংবাদিক বৈঠকে বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র বলেন, ‘‘রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের সদস্যের (চিন) মাধ্যমে এ ইস্যুতে সওয়াল করেছিল পাকিস্তান। রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ জানিয়েছিল, এই ইস্যু নিয়ে আলোচনা সঠিক জায়গা নয় এটা। দ্বিপাক্ষিক আলোচনা করা উচিত’’।