নয়া দিল্লি: সুপ্রিম কোর্টে (Supreme Court) বড়সড় ধাক্কা খেল পশ্চিমবঙ্গ সরকার। শুক্রবার সুপ্রমি কোর্ট নির্দেশ দিল যে, বাংলাকে ‘এক দেশ এক-রেশন’ (One Nation One Ration Card) কার্ড নীতি চালু করতে হবে। এমনকি যত শীঘ্র সম্ভব ‘এক দেশ – এক রেশন কার্ড’ বিতরণও শুরু করার নির্দেশ দিয়েছে শীর্ষ আদালত।

শুক্রবার এক মামলার শুনানিতে সুপ্রিম কোর্ট(Supreme Court) জানিয়ে দিয়েছে, কোনও বাহানা ছাড়াই অবিলম্বে এক দেশ এক রেশন কার্ড নীতি চালু করতে হবে পশ্চিমবঙ্গ সরকারকে। এই ব্যবস্থা পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য। এই নিয়ে কোনো অজুহাত শুনবে না আদালত।

শুক্রবার রীতিমত কড়া ভাষায় এই নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতিরা। এই প্রকল্প পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য যে অত্যন্ত প্রয়োজনীয়, তাও জানানো হয়। এই মামলার পরিপ্রেক্ষিতে কেন্দ্রের যুক্তি ছিল কাজের জন্য বহু মানুষকে অন্য রাজ্য গিয়ে থাকতে হয়। ফলে এক রাজ্যে রেশন কার্ড থাকলে অন্য রাজ্যে গিয়ে তারা খাদ্যসামগ্রী পান না। এই সমস্যা মেটাতেই এক দেশ এক রেশন কার্ড(One Nation One Ration Card) চালু করেছে কেন্দ্র।

পশ্চিমবঙ্গে এখনও চালু না হলেও গুজরাট, অন্ধ্রপ্রদেশে, মহারাষ্ট্র এমনকি কেরলের মত একাধিক রাজ্যে চালু রয়েছে এই প্রকল্প। তবে এই প্রকল্প চালু না করার পিছনে রাজ্য়ের যুক্তি ছিল,এতে রাজ্যের উপরে বাড়তি চাপ পড়বে। এই প্রকল্পের থেকে রাজ্যের খাদ্যসাথী প্রকল্প অনেক ভাল। তবে শেষ পর্যন্ত এই যুক্তি নাকচ করে দেয় সুপ্রিম কোর্ট।

প্রসঙ্গত, বহু দিন ধরেই এক দেশ এক রেশ কার্ড নিয়ে কেন্দ্রের সঙ্গে রাজ্য়ের বিবাদ জারি রয়েছে। রাজ্য সরকারের দাবি ছিল, এই প্রকল্পের থেকে রাজ্যের খাদ্যসাথী প্রকল্প অনেক ভাল। কিন্তু কেন্দ্রের যুক্তির কাছে যে এই দাবি মোটে তা এদিনের রায়েই স্পষ্ঠ। তাই মোদী বিরোধিতা করতে গিয়ে শীর্ষ আদালতে বড়সড় ধাক্কা খেতে হল মমতার সরকারকে। আর সুপ্রিম কোর্ট রাজ্য সরকারকে নির্দেশ দিল, অবিলম্বে এক দেশ এক রেশন কার্ড প্রকল্প চালু করার।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.