স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: লোকসভা ভোটের আবহেই আজ, সোমবার মুর্শিদাবাদের নওদা ও কান্দি বিধানসভায় উপনির্বাচন৷ এই দু’টি উপনির্বাচনে বুথ ফেরৎ সমীক্ষাগুলি প্রভাব পড়তে পারে বলে আশঙ্কার করছেন অধীর চৌধুরীর ঘনিষ্টারা৷ কারণ প্রায় সমস্ত বুথ ফেরৎ সমীক্ষাই এরাজ্যে গেরুয়া ঝড়ের পাশাপাশি কংগ্রেসের শক্তিহ্রাসের ইঙ্গিত দিয়েছে৷

নওদা ও কান্দি, এই দুটি বিধানসভাই অধীর চৌধুরীর নির্বাচনী কেন্দ্র বহরমপুর লোকসভার অন্তর্গত৷ স্বাভাবিকভাবেই দুটি কেন্দ্রে তৃণমূলের দখলদারি রুখতে মরিয়া মুর্শিদাবাদে কংগ্রেসের সর্বেসর্বা অধীর৷ এদিকে তৃণমূলও দু’টি কেন্দ্রকে পাখির চোখ করেছে৷ এরমধ্যে সমস্ত বুথ ফেরৎ সমীক্ষার ফল কংগ্রেসকে এরাজ্যে একটি অথবা দু’টি আসন দিচ্ছে৷ ২০০৯ সালে এরাজ্য থেকে চারটি আসন পেয়েছিল কংগ্রেস৷

আরও পড়ুন: গেরুয়া ঝড়ে বাধ সাধবে দ্রাবিড়ভূমের ভোট, ইঙ্গিত সমীক্ষায়

রবিবার সন্ধ্যের পর বুথ ফেরৎ সমীক্ষাগুলি দেখে মুর্শিদাবাদের কংগ্রেসের একাংশ বেশ উদ্বিগ্ন৷ তাঁরা মনে করছে রাজ্যে কংগ্রেসের ক্ষয়িষ্ণু অবস্থা ভোটারদের মনে প্রভাব ফেলতে পারে৷ তবে অন্য একটা অংশের মতে, বুথ ফেরৎ সমীক্ষার কোনও নেতিবাচক প্রভাব নওদা ও কান্দি বিধানসভার ভোটে কংগ্রেসের ভোট ব্যাংকে পড়বে না৷

কারণ, একাধিক সমীক্ষার ফল বলছে, রাজ্যে তৃণমূলেরও শক্তিক্ষয় হচ্ছে৷ আর এই দু’টি বিধানসভায় কংগ্রেসের লড়াই তৃণমূলের সঙ্গে৷ এখানে বিজেপির কোনও অস্তিত্ব নেই৷ অতএব, তৃণমূল বিরোধী ভোট এখানে ‘হাত’ চিহ্নেই পড়বে৷

আরও পড়ুন: ৩৫০ পার হবে বিজেপি, বলছে চাণক্যের ExitPoll

এখনও পর্যন্ত প্রকাশিত সমস্ত বুথ ফেরত সমীক্ষাই জানাচ্ছে ইউপিএ জোটের তুলনায় বেশ কিছুটা এগিয়ে রয়েছে এনডিএ জোট। এমনকি বাংলাতেও শক্তিবৃদ্ধি হচ্ছে বিজেপির। টাইমস নাও-ভিএমআর-এর বুথ ফেরত সমীক্ষায় দেখা যাচ্ছে এ রাজ্যে তৃণমূল পেতে পারে ২৮টি আসন, বিজেপি পেতে পারে ১১টি আসন, কংগ্রেস পেতে পারে ২টি আসন ও অন্যান্যরা পেতে পারে ১টি আসন। রিপাবলিক টিভির সমীক্ষাতে এই রাজ্যে তৃণমূল পেতে পারে ২৯টি আসন, বিজেপি পেতে পারে ১১টি আসন ও কংগ্রেস পেতে পারে ২টি আসন।

এবিপি-এসি নিয়েলসেনের বুথ ফেরত সমীক্ষায় দেখা যাচ্ছে এ রাজ্যে তৃণমূল পেতে পারে ২৪টি আসন, বিজেপি পেতে পারে ১৬টি আসন, কংগ্রেস পেতে পারে ২টি আসন। বামেদের ভাঁড়ার শূন্য।

আরও পড়ুন: ভারতবর্ষে আবার নরেন্দ্র মোদীই প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন; মুকুল

জন-কী-বাত ও ইন্ডিয়া টুডে’র সমীক্ষায় তৃণমূলের আরও আসন কমার ইঙ্গিত দিচ্ছে৷ জন-কী-বাত জানাচ্ছে তৃণমূল পেতে পারে ১৭টি আসন, বিজেপি পেতে পারে ২২টি আসন। অর্থাৎ রাজ্যে বিজেপি টপকে যেতে পারে তৃণমূলকে। অন্যদিকে কংগ্রেস পেতে পারে ৩টি আসন। অনেকটা একই ছবি দেখা গিয়েছে ইন্ডিয়া টুডে’র সমীক্ষাতে। এই সমীক্ষায় দেখা যাচ্ছে তৃণমূল পেতে পারে ১৯-২২টি আসন। বিজেপি পেতে পারে ১৯-২৩টি আসন। কংগ্রেস পেতে পারে ১টি আসন।

এব্যাপারে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্র বলেন, “আমি এখনও বিশ্বাস করি কংগ্রেস এরাজ্যে চারটি আসনই পাবে৷ বিভিন্ন বুথ ফেরত সমীক্ষায় দেখাচ্ছে উত্তর মালদহে মৌসম নূর জিতছে৷ কিন্তু আমি কোনও অংকেই মেলাতে পারছি না যে মৌসম নূর জিতবে৷”

সাংগঠনিক শক্তির পাশাপাশি এখন হাত শিবিরের মাথা ব্যাথার কারণ বুথ ফেরৎ সমীক্ষার প্রবণতা৷