মিলান: চুপিসারে বাজি মেরে গেলেন সিরো ইম্মোবিলে। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো, রবার্ট লেওয়ানদোস্কিদের পিছনে ফেলে ২০১৯-২০ ইউরোপিয়ান গোল্ডেন সু জিতে নিলেন ল্যাজিও তথা ইতালির জাতীয় দলের এই স্ট্রাইকার। একসময় জুভেন্তাসের সঙ্গে লিগ জয়ের দৌড়ে পাল্লা দিচ্ছিল ল্যাজিও। গোলের সামনে ইম্মোবিলের দাপট দারুণভাবে লিগ জয়ের লড়াইয়ে রেখেছিল তাঁর দলকে।

তবে লকডাউন পরবর্তী সময় টানা কয়েকটি ম্যাচ হেরে লিগ জয়ের দৌড়ে পিছিয়ে পড়ে ল্যাজিও। কিন্তু গোলের সামনে একটা স্বপ্নের মরশুম কাটালেন ল্যাজিও স্ট্রাইকার ইম্মোবিলে। ৩৬ গোল করে সিরি-এ একটি মরশুমে সর্বাধিক গোলের নিরিখে আর্জেন্তাইন স্ট্রাইকার গঞ্জালো হিগুয়েনকে স্পর্শ করলেন বছরের তিরিশের স্ট্রাইকার।

উল্লেখ্য, ২০১৯-২০ বুন্দেসলিগায় ৩৪ গোল করে মরশুমে শেষ করেছেন বায়ার্ন মিউনিখ স্ট্রাইকার লেওয়ানদোস্কি। অন্যদিকে লিগের শেষ ম্যাচে মাঠে না নামায় ৩১ গোল করে সিরি-এ মরশুমে শেষ করলেন রোনাল্ডো। স্পেনে নজর ঘোরালে দেখা যাবে ৩০ গোল করে লা-লিগার সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়েছেন লিওনেল মেসি।

সব মিলিয়ে ইউরোপিয়ান গোল্ডেন সু-এর দৌড়ে নিকটতম প্রতিদ্বন্দী লেওয়ানদোস্কিকে দু’গোলে পিছনে ফেললেন সিরো। তবে গোল করলেও শ্বষ ম্যাচে দলকে জেতাতে পারেননি ইতালির জাতীয় দলের স্ট্রাইকার। নাপোলির বিরুদ্ধে ১-৩ গোলে হেরে চতুর্থস্থানে শেষ করল ল্যাজিও।

অন্য ম্যাচে আটলান্টাকে ২-০ গোলে হারিয়ে জুভেন্তাসের ঠিক পিছনে শেষ করল ইন্টার মিলান। চ্যাম্পিয়ন জুভেন্তাসের সঙ্গে তাঁদের পয়েন্টের ব্যবধান মাত্র এক। এক ম্যাচ বাকি থাকতে লিগ জয় নিশ্চিত হলেও জয় দিয়ে লিগ অভিযান শেষ করতে ব্যর্থ চ্যাম্পিয়ন জুভেন্তাস।

শেষ ম্যাচে শনিবার রোমার কাছে ১-৩ গোলে হারল মৌরিজিও সারির দল। শেষ ম্যাচে দলে ছিলেন না রোনাল্ডো, দিবালা। তবু হিগুয়েনের গোলে পাঁচ মিনিটের মাথায় এগিয়ে গিয়েছিল জুভে। কিন্তু সেই গোল ধরে রাখতে ব্যর্থ হয় তাঁরা। উলটে বিরতির আগেই পিছিয়ে পড়ে চ্যাম্পিয়নরা।

বিরতির পর গোল করে ম্যাচে ফেরা তো দূরের কথা ফের গোল হজম করে পরাজয় নিশ্চিত হয় টানা ন’বারের খেতাব জয়ীদের। অর্থাৎ ৩৮ ম্যাচে ৮৩ পয়েন্ট নিয়ে লিগ শেষ করল ওল্ড লেডি। ঠিক পিছনে ৮২ পয়েন্ট নিয়ে শেষ করল ইন্টার।

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা