গুয়াহাটি: ক্রমশ যেভাবে অশান্তি বাড়ছে তাতে রক্তাক্ত অসম যেন আরও এক কাশ্মীর হয়ে উঠছে । যা দেখে উদ্বিগ্ন অসম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন উপাচার্য তপোধীর ভট্টাচার্য৷ তাঁর অভিমত, অবিলম্বে সে রাজ্যে শান্তি ফেরানোটাই জরুরি ৷

গত দুদিন ধরে ব্রহ্মপুত্র উপত্যকার জনগণ যেন শেষ দেখে ছাড়বেন এমনই পণ করেছেন। ফলে টানা ৪৮ ঘণ্টা ধরে প্রবল উত্তপ্ত এই রাজ্য। কার্ফু জারির পরেও নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের বিরুদ্ধে আন্দোলনের ফলে রীতিমতো রক্ত ঝরছে। দিনভর গুয়াহাটিতে পুলিশ-সেনার বিরুদ্ধে জনতার প্রতিবাদ এমনই আকার নেয় যে, গুলি চালিয়ে জমায়েত ছত্রভঙ্গ করতে হয়। এই আন্দোলনের জেরে ইতিমধ্যেই তিন জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে। জখম বেশ কয়েকজন। তাদের কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

এই প্রসঙ্গে তপোধীরবাবুর বক্তব্য, অসমের ব্রহ্মপুত্র উপত্যকার অবস্থা খারাপ থেকে আরও খারাপের দিকে যাচ্ছে, যা এক গণ হিস্টোরিয়ার আকার নিচ্ছে ৷ তা দেখে পরিস্থিতি উদ্বেগ্নজনকই বলে মনে হয়েছে তাঁর৷ প্রাক্তন উপাচার্যের বক্তব্য , এই ঘটনা শুধু অসম বলে নয় গোটা ভারতের স্বাস্থ্যের জন্যই উদ্বেগজনক ৷ তাই আপাতত যে কোনও মূল্য শান্তি ফিরিয়ে আনার কথাই বলেছেন তিনি৷

তপোধীরবাবুর মতে, কেউ তো জঙ্গলে বাস করছে না, সুসভ্য ভারতবর্ষে বাস করছে ৷ তিনি মনে করান, ভারতের সংবিধান তো জাতি ধর্ম নির্বিশেষে সকলে একসঙ্গে নিরাপদে আনন্দে বাস করতে বলেছে ৷ সকলেরই সেই অধিকার নিয়ে এ দেশের থাকার কথা৷ ভাষা ধর্ম নির্বিশেষে পরস্পরের মধ্যে বোঝাপড়া সম্প্রীতি বজায় রেখে এখানে মানুষ বাস করে ৷ তাই সকল জাতি সম্প্রদায়ের মানুষকে এগিয়ে আসতে হবে শান্তি প্রতিষ্ঠায় যাতে এই গণ হিস্টিরিয়া প্রতিহত করা যায়৷ সকলে মিলে আলোচনার মাধ্যমে শান্তি ফেরানো এই মুহূর্তে বিশেষ জরুরি বলে তিনি মনে করছেন ৷