নয়াদিল্লি: মঙ্গলবার ইন্টারন্যাশনাল মানিটারি ফান্ড (আইএমএফ )-এর আনুমানিক হিসেব জানিয়েছে ভারতের বৃদ্ধির হার ২০২১ সালে ১১.৫ শতাংশ হবে । এই করোনা মহামারীর পর ভারতই একমাত্র প্রধান অর্থনীতি যার আর্থিক বৃদ্ধি ১০ ছাড়াবে বলে জানাচ্ছে।

আইএমএফ তার সর্বশেষ ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক আউটলুক-এ ভারতের বৃদ্ধি কেমন হতে পারে সে ব্যাপারে অভিমত প্রকাশ করেছে তাতে এদেশের অর্থনীতি শক্তিশালী হয়ে ঘুরে দাঁড়াচ্ছে বলেই প্রতিফলিত হয়েছে। যেখানে ২০২০ সালে এদেশের অর্থনীতি মহামারীর জন্য ৮ শতাংশ সংকোচন‌ হতে পারে বলে ধরা হয়েছিল।

আইএমএফ এবারের রিপোর্টে তুলে ধরেছে ভারতের অর্থনৈতিক বৃদ্ধি ২০২১ সালে ১১.৫ শতাংশ হতে পারে। এর ফলে বিশ্বের প্রধান দেশগুলির মধ্যে একমাত্র ভারত যার বৃদ্ধির হার ২০২১ সালে ১০ শতাংশ ছাড়াচ্ছে। এর পরেই থাকছে চিন যার ২০২১ সালে বৃদ্ধির হার ধরা হয়েছে ৮.১ শতাংশ। তারপরে থাকছে যথাক্রমে স্পেন এবং ফ্রান্স যাদের বৃদ্ধির হার ৫.৯ শতাংশ এবং ৫.৫ শতাংশ ধরা হয়েছে।

নতুনভাবে পর্যালোচনা করার পর যে অংক এসেছে তার প্রেক্ষিতে আইএমএফ জানিয়েছে, ২০২০ সালে ভারতের অর্থনীতি ৮ শতাংশ সংকোচনের কথা ধরা হয়েছিল। ওই সময় প্রধান দেশগুলির মধ্যে চিন ছিল একমাত্র দেশ যার ২০২০ সালে বৃদ্ধি (২.৩ শতাংশ) ধরা হয়েছিল।

আইএমএফ-এর হিসাব অনুসারে ২০২২ সালের জন্য ভারতের বৃদ্ধির হার ধরা হয়েছে ৬.৮ শতাংশ এবং চিনের জন্য ৫.৬ শতাংশ। এবারের পর্যালোচনার পর বিশ্বের উন্নয়নশীল অর্থনীতির মধ্যে ভারতের সবচেয়ে দ্রুত উন্নয়ন হবে বলে মনে করা হচ্ছে।

এই মাসের প্রথমে আইএমএফ ম্যানেজিং ডিরেক্টর ক্রিস্টালিনা জর্জিয়েভা জানিয়েছিলেন, ভারত প্রকৃতপক্ষে সিদ্ধান্ত নিয়েছিল এবং পদক্ষেপ করেছিল মহামারীর জন্য অর্থনৈতিক পরিণতির সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে। তিনি জানিয়েছিলেন, এত জনবহুল একটি দেশে লকডাউন জারি করেছিলেন এত মানুষকে সঙ্গে নিয়ে ।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।