ওয়াশিংটন: প্রধানমন্ত্রী হওয়ার প্রথম মার্কিন সফর ইমরান খানে৷ মার্কিন মুলুকে গিয়ে পাকিস্তান ক্রিকেটকে ভবিষ্যতে ফের বিশ্বসেরা করার প্রতিশ্রুতি দিলেন বিশ্বকাপ জয়ী পাক অধিনায়ক৷

২০১৯ বিশ্বকাপে পাঁচ নম্বরে শেষ করেছে পাকিস্তান৷ অল্পের জন্য সেমিফাইনাল পৌঁছতে পারেনি সরফরাজ অ্যান্ড কোং৷ লিগের ৯ ম্যাচের মধ্যে পাঁচটিতে জয় এবং তিনটি হেরেছিল পাকিস্তান৷ একটি ম্যাচ বৃষ্টির জন্য পরিত্যক্ত হয়৷ নিউজিল্যান্ডের সঙ্গে সমসংখ্যক পয়েন্ট হলেও রান-রেটে পিছিয়ে থাকায় শেষ চারে ওঠা হয়নি সরফরাজদের৷ ফলে পাঁচ নম্বরেই সন্তুষ্ট থাকতে হয় ১৯৯২-এর বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের৷ ২৭ বছর আগে ইমরানের হাত ধরেই বিশ্বসেরা হয়েছিল পাকিস্তান৷

রবিবার ওয়াশিংটন ডিসি-কে পাক কমিউনিটি এলাকায় বক্তৃতা দিতে গিয়ে পাক প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এই বিশ্বকাপে পর আমি সিদ্ধান্ত নিয়েছি, পাকিস্তান ক্রিকেট দলের উন্নতি করেই আমি ছাড়ব৷ পাকিস্তান ক্রিকটকে আমি বদলে দেব৷ আমি জানি, এবার অনেকেই হতাশ হয়েছে৷ আশা করি পরের বিশ্বকাপে আমাদের দেখবে দারুম পেশাদর দল হিসেবে৷ সেটা হবে সেরা পাকিস্তান টিম৷ আমার কথা মনে রাখবেন৷’

অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে ১৯৯২ বিশ্বকাপ ফাইনালে ইংল্যান্ডকে হারিয়ে পাকিস্তানকে বিশ্বজয়ের স্বাদ এনে দিয়েছিলেন ইমরান৷ তাঁর হাত ধরেই আমূল বদল এসেছে পাকিস্তান ক্রিকেটে৷ কিন্তু তিনি এখন দেশের প্রশাসনিক প্রধান৷ গত বছরই সাধারণ নির্বাচন জিতে পাক প্রধানমন্ত্রীর চেয়ারে বসেছেন ইমরান৷ সুতরাং দেশের পাশাপাশি পাকিস্তান ক্রিকেট দলের রাশ এখন তাঁর হাতেই৷