কোচবিহার: যাতায়াতের পথে প্রায়ই রোজই পুলিশি জেরার মুখে পড়তে হয়৷ তাই অভিনব উপায়ে মদ পাচারে নামল অবৈধ কারবারীরা৷ বেআইনি মদ পাচারের অভিনব কায়দা সামনে আসল কোচবিহারে। ট্রাকে আলাদা চেম্বার করে সেখানেই লুকিয়ে পাচার করা হচ্ছে লিটার লিটার মদ৷

আরও পড়ুন: গুরুতর অসুস্থ জেলবন্দি প্রাক্তন পাক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ

সম্প্রতি অভিযান চালিয়ে এমন চাঞ্চল্যকর তথ্যই হাতে উঠে এসেছে কোচবিহার পুলিশের৷ উদ্ধার হয়েছে ৬০০০ বোতল বেআইনি মদ। এভাবে ট্রাকের মধ্যে আলাদা চেম্বার করে যে মদ পাচার করা হচ্ছে তা দেখে অবাক পুলিশও৷ কোচবিহারের বক্সিরহাট থানার সংকোচে বাংলা-অসম সীমানা এলাকায় ঘটনাটি ঘটে৷

পুলিশের কাছে খবর ছিল একটি ট্রাকে মদ পাচার করা হবে। এরপরই ওই পথের ট্রাকগুলিতে তল্লাশি চালাতে শুরু করে পুলিশ৷ এরকমই একটি ট্রাক দাঁড় করিয়ে পুছতাছ চালায় পুলিশ৷ কিন্তু ট্রাকে কিছুই নজরে পড়েনি৷ ছেড়েও দিয়েছিল ট্রাকটিকে৷

আরও পড়ুন: বিস্ফোরণে উড়ল তৃণমূল কংগ্রেস নেতার বাড়ি

এরইমধ্যে হঠাৎ এক পুলিশ আধিকারিক ট্রাকের গায়ে লাঠি দিয়ে এক ঘা দিতেই সন্দেহজনক শব্দ শোনা যায়। সঙ্গে সঙ্গে আটকানো হয় ট্রাকটি৷ চালককে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করতেই সেই ট্রাকের ভিতর গোপন চেম্বারের কথা জানায়৷ এরপর সেই চেম্বার খুলে চোখ তো কপালে ওঠে পুলিশের৷

সেখান থেকে বের করা হয় ৬০০০ বোতল বেআইনি মদ৷ যার বাজার মূল্য প্রায় ১৫ লক্ষ টাকা। এই ঘটনায় ট্রাকের চালক ইস্তেকার খানকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে৷ এদিকে ঘটনার পরই ট্রাকের খালাসি পলাতক৷ জানা গিয়েছে অসমের গৌহাটি থেকে ট্রাকটি উত্তরপ্রদেশে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল।

আরও পড়ুন: আলো ছাড়াই টোটো চলাচলে বাড়ছে দুর্ঘটনা

পুলিশই বলছে, এরআগে এইভাবে পাচার সামনে আসেনি৷ তবে কারবারীরা যে নতুন নয় সে বিষয়েও যথেষ্ট তথ্য মিলছে৷ স্বভাবতই এই ঘটনা ভাবাচ্ছে পুলিশকে৷ এমনিতেই সীমান্ত এলাকায় পাচারকারীদের রমরমা৷ শুধু মাদক দ্রব্যই নয়, অন্যান্য আরও বহু জিনিসেরই চলে লেনদেন৷ পুলিশ নিয়মিত অভিযান চালিয়েও দমাতে পারেনি এই ধরনের দুষ্কৃতীদের৷

এদিন কোচবিহার পুলিশ লাইনে এক সাংবাদিক সন্মেলনে পুলিশসুপার ভোলানাথ পাণ্ডে বলেন, জেলার বিভিন্ন জায়গায় অ্যান্টি ক্রাইম রেইড চলছে। তারই অঙ্গ হিসেবে এই ধরপাকড় শুরু হয়েছে। ট্রাক চালককে জিজ্ঞাসাবাদ করে এই পাচারচক্রের অন্যান্য চাঁইদের খুঁজে বের করার চেষ্টা করা হচ্ছে৷

আরও পড়ুন: আত্মপ্রকাশ টোকিও অলিম্পিকের ম্যাসকটের