স্টাফ রিপোর্টার, তমলুক: শ’দেড়েক পিচবোর্ডের কার্টুন৷ আর সেই কার্টুনের মধ্যে টিস্যু পেপারে মোড়া কিছু সামগ্রী৷ জাহাজে করে ওই কার্টুনগুলি আনা হচ্ছিল কলকাতায়৷

এই পর্যন্ত ঘটনাটিকে খুব সাধারণ মনে হলেও ওই টিস্যু পেপারের মধ্যেই লুকিয়ে ছিল ভয়ঙ্কর সত্যি৷ যা সামনে এল শুক্রবার৷ হলদিয়া বন্দরের ওই ঘটনায় কার্যত তাজ্জব তদন্তকারীরা৷

আরও পড়ুন: ‘… পুরো ভিডিওটি দেখিয়ে কাউকে কিছু না বলার হুমকি দিত ওরা’

স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন উঠছে, কী ছিল ওই কার্টুনে৷ যা সামনে নিয়ে এল ভয়ঙ্কর কোনও সত্যি৷ ডিরেক্টরেট অফ রেভিনিউ ইন্টেলিজেন্স বা ডিআরআই-এর একটি সূত্র থেকে জানা গিয়েছে, কলকাতায় আসার পথে একটি জাহাজ হলদিয়া বন্দরে দাঁড়িয়েছিল৷ শুক্রবার ওই জাহাজেই তল্লাশি চালায় ডিআরআই-এর তদন্তকারীরা৷

ওই জাহাজ থেকেই উদ্ধার হয় ১৫০ কার্টুন৷ যে কার্টুনের মধ্যে টিস্যু পেপারে মোড়া ছিল প্রচুর পরিমাণ সিগারেট৷ যা অবৈধ উপায়ে কলকাতায় আনা হচ্ছিল৷ যার আনুমানিক বাজার মূল্য ২ কোটি টাকা৷

আরও পড়ুন: নববর্ষ থেকে স্বাধীনতা দিবস! বছরে পাঁচটি উৎসব ভাতার ঘোষণা মন্ত্রীর

তদন্তকারীদের সূত্রে খবর, জাহাজটি দুবাই থেকে কলকাতা আসছিল৷ মাঝপথে মুম্বই বন্দরে দাঁড়িয়েছিল৷ তার পর সেখান থেকে রওনা দেয় কলকাতার উদ্দেশে৷ এর পরই ওই জাহাজে সিগারেট পাচারের বিষয়টি সামনে আসে৷

মুম্বই থেকে পাচারের সঙ্গে জড়িত সন্দেহে দু’জনকে গ্রেফতার করা হয়৷ তার পর আরও তথ্য আসে তদন্তকারীদের হাতে৷ তখনই ওই জাহাজে আচমকা হানা দেওয়ার পরিকল্পনা করা হয়৷ সেই মতো শুক্রবার হানা দেওয়া হয় ওই জাহাজে৷ উদ্ধার করা হয় অবৈধ সিগারেট৷

আরও পড়ুন: কলকাতাসহ দক্ষিণবঙ্গে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা

তদন্তকারীদের অনুমান, এই ঘটনায় কলকাতার বড় কোনও পাচারচক্র জড়িত৷ এবার তাদের সন্ধানে তল্লাশি শুরু হবে৷