মুম্বই: আইআইটি বোম্বের প্রজাতন্ত্র দিবস উদযাপনের জন্য ১০০০ ফুট পতাকা নিয়ে শোভাযাত্রা করল শনিবার। ৭১তম প্রজাতন্ত্র দিবসের আগের দিন ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজির ছাত্র, অধ্যাপক এবং অন্যান্য কর্মচারীরা ইনস্টিটিউটের ক্যাম্পাসে একটি ‘তিরঙ্গা মার্চ’-এর আয়োজন করে। হাজার ফুট লম্বা ত্রিবর্ণ নিয়ে এই পদযাত্রায় অংশ নেয় প্রায় ১৫০০ হাজারের মানুষ। এর মধ্যে রয়েছেন শিক্ষার্থী, অধ্যাপক, শিক্ষককর্মী এবং তাঁদের পরিবারের সদস্যরা। ‘দেশ গঠনের জন্য আইআইটি বোম্বে’ শীর্ষক শিরোনামে এদিনের অনুষ্ঠানটি উদযাপন করা যায়।

এদিন শিক্ষার্থী, ফ্যাকালটি সবাই মিলে ভারত মাতাকে স্মরণ করে। বন্দে মাতরম স্লোগান দিয়ে পদযাত্রা এগিয়ে নিয়ে চলে। আইআইটি বোম্বাইয়ের অধ্যাপক আশিস পান্ডে মনে করেন তাঁদের প্রতিষ্ঠানের সমস্ত পড়ুয়া দেশের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রত্যেকের মধ্যে তিনি দেশভক্তি লক্ষ্য করেন। এত বড় পদযাত্রায় অংশ নেওয়ার জন্য তিনি সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন।

অধ্যাপক আশুতোষ কুমারের মতে, আইআইটি বোম্বে এমন একটি প্রতিষ্ঠান যা গবেষণায় শ্রেষ্ঠত্বের জন্য সুপরিচিত, রাজনীতির জন্য নয়। এ কথা তিনি মনে করিয়ে দিয়ে তিনি আরও বলেন, রাজনীতি গবেষণাকে বাধা দেয়। আমরা এর নিন্দা করি। আজকের দিনে দাঁড়িয়ে প্রজাতন্ত্র দিবস উদযাপন করা অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণটি। ১০০০ ফুট পাতাকা নিয়ে শোভাযাত্রা জাতীয় সংগীতের মাধ্যমে শেষ হবে।

২৬ জানুয়ারি
প্রতি বছর ২৬ জানুয়ারি প্রজাতন্ত্র দিবসে অনুষ্ঠিত হয় গোটা দেশ জুড়ে। নতুন দিল্লিতে প্রজাতন্ত্র দিবস উদযাপনের গুরুত্বপূর্ণ ভাবে। এনসিসি এবং স্কাউটের ছেলেরা এই অনুষ্ঠানে অংশ নেয়। আঞ্চলিক নৃত্য, দেশাত্মবোধক গান এবং সামরিক বাইক শো দিয়ে কুচকাওয়াজ অনুসরণ করা হয়।

প্রতি বছর ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবসে পতাকা উত্তোলনের সময় জাতীয় পতাকার উদ্দেশে ২১ বার স্যালুট দেওয়া হয়। যখন কোনও বিদেশি রাষ্ট্রপতি ভারত সফর করেন সেক্ষেত্রে ২১ বার এবং বিদেশি প্রধানমন্ত্রীর ক্ষেত্রে ১৯ বার গান স্যালুট করা হয়। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এ বছর প্রজাতন্ত্র দিবস উদযাপনের অনুষ্ঠানে ব্রাজিলের রাষ্ট্রপতি জেইর বলসোনারোকে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন। তিনি হবেন এবারের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি। ভারত থেকে আমন্ত্রণ পেয়ে আপ্লুত ব্রাজিলের রাষ্ট্রপতি।