নয়াদিল্লি: লুকা মদ্রিচ, ব্রুনো পেরিসিচদের দেশের ছোঁয়া লাগল ভারতীয় ফুটবলে। স্টিফেন কনস্ট্যানস্টাইনের জুতোয় পা গলালেন ক্রোয়েশিয়ার ইগর স্টিমাচ। এশিয়া কাপের ব্যর্থতার পর দায়িত্ব ছেড়েছিলেন স্টিফেন কন্সট্যান্সটাইন। এরপর তড়িঘড়ি কোচ বাছাইয়ের কাজ শুরু করে দেয় এআইএফএফ। সুনীলদের কোচ হওয়ার দৌড়ে প্রায় ২০০ কোচের আবেদন জমা পড়লেও ৪ জনের নাম চূড়ান্ত হয়। অবশেষে বৃহস্পতিবার ইগর স্টিমাচের নামই নতুন কোচ হিসেবে ঘোষণা করল ভারতের ফুটবল ফেডারেশন।

তালিকায় যেমন ছিলেন ইগর স্টিমাচ, তেমনই ছিলেন বেঙ্গালুরু এফসি’র প্রাক্তন স্প্যানিশ কোচ আলবার্তো রোকা, ছিলেন সুইডিশ হাকান এরিকসন এবং দক্ষিন কোরিয়ার লি মিন সুং। তবে ভারতীয় ফুটবল সম্পর্কে ইগরের ব্যপ্তি ও অভিজ্ঞতা সবচেয়ে বেশি আশ্বস্ত করেছিল বোর্ডের টেকনিক্যাল কমিটিকে। চেয়ারম্যান শ্যাম থাপা তাই আগেই জানিয়েছিলেন সব ঠিকঠাক থাকলে সুনীলদের কোচ হতে চলেছেন ইগর স্টিমাচই।

আরও পড়ুন: বিশ্বকাপ জয়কে অ্যাসেজের তুলনায় এগিয়ে রাখছেন ইংরেজ তারকা

১৪ বছরের কোচিং কেরিয়ারে ইগরের সাফল্যের ভাঁড়ার কম নয়। ২০১৪ বিশ্বকাপে ক্রোয়েশিয়া যোগ্যতা অর্জন করেছিল তাঁর হাত ধরেই। দেশের জার্সি গায়ে ৫৩টি ম্যাচে প্রতিনিধিত্ব করা স্টিমাচ ১৯৯৮ বিশ্বকাপে তৃতীয় স্থানাধিকারী দলের গুরুত্বপূর্ণ সদস্য ছিলেন। তালিকায় আলবার্তো রোকা থাকলেও ক্লাব ফুটবল ছাড়া জাতীয় দলের কোচ হিসেবে তেমন সাফল্য না থাকায় বেঙ্গালুরুর প্রাক্তন কোচের প্রতি আগ্রহ হারায় টেকনিক্যাল কমিটি।

আরও পড়ুন: বর্ষসেরা কোচের লড়াইয়ে গুয়ার্দিওলার সঙ্গে ক্লপও

তাছাড়া রোকা কিংবা এরিকসনের বেতনের চাহিদাও ছিল ফেডারেশনের নির্ধারিত বাজেটের তুলনায় অনেকটাই বেশি। কিন্তু স্টিমাচের চাহিদা সাধ্যের মধ্যে থাকায় দৌড়ে অনেকটাই বাজি মেরে দেন এই ক্রোট। বৃহস্পতিবার নয়াদিল্লিতে এআইএফএফ’র হেডকোয়ার্টারে এসে স্টিমাচ ইন্টারভিউ দেওয়ার পর টেকনিক্যাল কমিটির সভায় চূড়ান্ত হয় মদ্রিচদের প্রাক্তন কোচের হাতে সুনীল-জেজেদের দায়িত্ব তুলে দেওয়ার বিষয়টি। সভায় উপস্থিত ছিলেনঞ্চেয়ারম্যান শ্যাম থাপা, নব-নিযুক্ত টেকনিক্যাল ডিরেক্টর দরু আইজ্যাক, ভাইস চেয়ারম্যান হেনরি মেনেনজেস প্রমুখ।