নয়াদিল্লি: লকডাউনে টাকার প্রয়োজন পড়তেই পারে। কিন্তু জানেন কি টাকা তুলতে আপনার ব্যাঙ্কে যাওয়ার দরকার নেই। যদি আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট আধারের সঙ্গে যুক্ত থাকে তবে আপনি আধার এনাবেলড পেমেন্ট সিস্টেমের মাধ্যমে ডাকঘর থেকে ব্যাংকের টাকা তুলতে পারবেন। কোটি কোটি গ্রাহক করোনভাইরাস সংকটের সময় এই সুবিধা নিয়েছে।

ন্যাশনাল পেমেন্ট কর্পোরেশন অফ ইন্ডিয়া (এনপিসিআই) আধার এনএবেবলড পেমেন্ট সিস্টেম (এপিএস) তৈরি করেছে। এতে আধার নম্বর এবং ফিঙ্গারপ্রিন্ট / আইরিস স্ক্যানের সাহায্যে ভেরিফিকেশনের পর মাইক্রো-এটিএম থেকে লেনদেনের অনুমতি পাওয়া যায়। এর সাহায্যে গ্রাহক তাদের আধার নম্বর দিয়ে একটি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে অন্য অ্যাকাউন্টে টাকা পাঠাতে পারেন।

ইন্ডিয়া পোস্ট পেমেন্ট ব্যাংক (আইপিপিবি) আধার এনএবেবলড পেমেন্ট সিস্টেম (এইপিএস) শুরু করায়, গ্রাহকরা লেনদেনে অনেক সুবিধা পেতে শুরু করেছেন। আইপিপিবি গ্রাহককে দেশের মধ্যে এক অ্যাকাউন্ট থেকে অন্য অ্যাকাউন্টে টাকা অয়াঠানোর অনুমতি দেয়। এছাড়াও, আইপিপিবি এনইএফটি, আরটিজিএস, আইএমপিএস থেকে টাকা পাঠানোরও সুবিধা রয়েছে।

এই পেমেন্ট ব্যাঙ্কে সেভিংস অ্যাকাউন্ট, কারেন্ট অ্যাকাউন্ট, গ্রুপ টার্ম ইন্স্যুরেন্স, বিল পেমেন্ট এবং রিচার্জ, রেমিট্যান্স এবং ফান্ড ট্রান্সফার, ডোর স্টেপ ব্যাংকিং সরাসরি বেনিফিট ট্রান্সফারের সুবিধা রয়েছে।

আইপিপিবি ব্যাংকের গ্রাহককে এসএমএস ব্যাংকিংয়ের সুবিধা প্রদান করে, যাতে গ্রাহক তার মোবাইল ফোনে তাত্ক্ষণিক অ্যাকাউন্টের তথ্য পেতে পারেন। এছাড়া রয়েছে মিসড কলের সুবিধাও।

দেশের বৃহত্তম নেটওয়ার্ক ইন্ডিয়া পোস্টের পেমেন্টস ব্যাঙ্ক দুই বছরেরও কম সময়ে দুই কোটি গ্রাহক ছুঁয়ে ফেলেছে। ২০১৯ সালের অগস্ট মাসে ১ কোটি ছিল গ্রাহক সংখ্যা। পরের ৫ মাসে এই ব্যাংকের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে আরও ১ কোটি গ্রাহক।

কি সুবিধা পাওয়া যায়?
টাকা তোলা
ব্যালেন্সের তথ্য
আধার থেকে আধারে টাকা পাঠানো

প্রশ্ন অনেক: দ্বিতীয় পর্ব