স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: সারা বাংলায় যেখানে ১৪৪ ধারা প্রয়োগ করবে, সেখানে আমি নিজে গিয়ে আইন ভাঙব।রাজ্য বিজেপির প্রায় প্রতিটি অভিনন্দন যাত্রার আগে পুলিশ-প্রশাসন ১৪৪ ধারা প্রয়োগ করছে বলে অভিযোগ গেরুয়া শিবিরের। সেই প্রসঙ্গেই রবিবার এই মন্তব্য করলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি তথা মেদিনীপুরের সাংসদ দিলীপ ঘোষ৷

এদিন রাজ্যবাসীকে সার্বিকভাবে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরোধিতায় নামার আবেদন জানান বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। রবিবার রাজ্য সদর দফতরে এক সাংবাদিক সম্মেলনে রাজ্যের বর্তমান পরিস্থিতির প্রেক্ষিতে দিলীপবাবু বলেন, আমি সাধারণ মানুষকে বলব, উনি যা বলছেন, তার বিরোধিতা করুন।

কর্মবিরতি নিয়ে জুনিয়র চিকিত্সকদের পরামর্শ দিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তাঁর কথায়, জুনিয়র চিকিত্সকরা মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে যত খুশি ঝগড়া করুন। কিন্তু তাঁরা পরিষেবা শুরু করে এই বিবাদ চালিয়ে যান। তিনি মনে করেন যে এ রাজ্যে চিকিত্সা পরিষেবা দ্রুত শুরু হোক। তাড়াতাড়ি উঠে যাক ধর্মঘট।

দিলীপ ঘোষের দাবি, এই পরিবেশ তৈরির জন্য মুখ্যমন্ত্রী দায়ী। তবে তিনি মনে করেন এই সংকট কাটানোর জন্য রাজ্য সরকার ও জুনিয়র চিকিত্সক, দু’পক্ষকেই নমনীয় হতে হবে। এই প্রসঙ্গেই দিলীপ ঘোষের প্রশ্ন, রাজ্যের সাধারণ মানুষ কী দোষ করল?

এদিকে, জুনিয়র চিকিৎসকদের দেওয়ার একটি অডিও বার্তা ঘিরে সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে৷তৃণমূলের অভিযোগ, অডিও বার্তায় যাঁর গলার স্বর শোনা যাচ্ছে তিনি লোকসভা নির্বাচনে বিজেপির পরাজিত প্রার্থী তথা প্রাক্তন আইপিএস অফিসার ভারতী ঘোষ৷ যদিও এই অডিও বার্তার সত্যতা যাচাই করেনি কলকাতা 24×7। বিজেপির রাজ্য সভাপতি এপ্রসঙ্গে বলেন, ভারতী ঘোষের নামে যে অডিও বাজারে ঘুরছে, তা একেবারে মিথ্যা। তৃণমূল সাধারণ মানুষকে বিভ্রান্ত করতে এই চরম ছলনার আশ্রয় নিয়েছে বলেও অভিযোগ করেন দিলীপবাবু।