নয়াদিল্লি: পুলওয়ামার জবাবে বালাকোট এয়ারস্ট্রাইক৷ পাকিস্তানের কাছে সে ছিল এক কালো রাত৷ সেই রাত  পাকিস্তানকে আরও একবার ফিরিয়ে দিত ভারত যদি তারা উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমানকে ভারতের হাতে না তুলে দিত৷

আরও পড়ুন: উত্তরপ্রদেশ যদি মোদীকে ক্ষমতায় আনতে পারে, তাঁকে সরাতেও পারে: মায়াবতী

ভারতীয় বায়ুসেনার উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমানকে না ফেরালে পাকিস্তানের কপালে আরও দুঃখ অপেক্ষা করছিল৷ রবিবার ভোটপ্রচারে এসে স্পষ্ট জানালেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী৷ এদিন গুজরাতের পাটনে জনসভা করেন নমো৷ সেখানে বালাকোটের ঘটনার কথা উল্লেখ করে মোদী বলেন, ‘‘শত্রু দেশের হাতে বন্দি আমাদের দেশের পাইলটের যদি কিছু হত তাহলে অশেষ দুর্ভোগ পোহাতে হত তাদের৷’’

মোদী এদিন বলেন, ‘‘যেদিন আমাদের দেশের পাইলটকে ওরা বন্দি বানালো বিরোধীরা আমার কাছ থেকে জবাব চাইছিল৷ আমরা প্রেস কনফারেন্স করে পাকিস্তানকে সতর্ক করে দিই যে অভিনন্দনের যেন কিছু না হয়৷ ওদের সাবধান করে বলা হয়, অভিনন্দনের কিছু হলে তারপর পাকিস্তানকে যেসব ঘটনার মুখোমুখি হতে হবে, তার জন্য মোদীকে যেন দোষারোপ না করা হয়৷ তারপর মার্কিন প্রশাসনের শীর্ষ কর্তা ওদের বলে, মোদী কিন্তু ভারতীয় সেনাবাহিনীকে ১২টি মিসাইল তৈরি করে রাখতে বলেছে৷ হামলার প্রস্তুতি নিয়েছে৷ যদি তা হয় তাহলে পরিস্থিতি আরও খারাপের দিকে যাবে৷ তারপরেই পাকিস্তান পাইলটকে ফিরিয়ে দেওয়ার কথা ঘোষণা করে৷ যদি পাকিস্তান তা না করত তাহলে সেটা হত ওদের কাছে কালো রাত৷’’

আরও পড়ুন: গুজরাত সীমান্তের এই হত্যাকাণ্ড জালিয়ানওয়ালাবাগের চেয়ে কম কিছু নয়

সন্ত্রাসবাদীদের খতম করার শপথ নিয়েছেন মোদী৷ জনসভা থেকে জানান মোদী৷ বলেন, ‘‘প্রধানমন্ত্রীর পদ থাকল কী গেল কিচ্ছু যায় আসে না৷ হয় আমি বাঁচব নয়তো জঙ্গিরা৷’’