স্টাফ রিপোর্টার, ঝাড়গ্রাম: নাগরিকত্ব দেওয়া নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে চ্যালেঞ্জ জানালেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ৷ তিনি বললেন, দরকার পড়লে অনলাইনে নাগরিকত্ব দেওয়া হবে৷ মুখ্যমন্ত্রী কিছ্ছু করতে পারবেন না৷

বৃহস্পতিবার ২০২১-এ বাংলা দখলের বার্তা দিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেন, আসন্ন ২০২১-এর বিধানসভা নির্বাচনে জয়ী হবে বিজেপিই। তৃণমূলের জারিজুরি সব শেষ হয়ে গিয়েছে। এবার বিদায় নেওয়ার পালা।

ঝাড়গ্রামের সভায় বিজেপি রাজ্য সভাপতি বলেন, ‘‘প্রায় ৫০ লক্ষ মুসলিম অনুপ্রবেশকারীর ভোট পেয়েছেন মমতা। উনি জেনে গিয়েছেন, যেভাবে দেশ এগোচ্ছে, সব হিন্দুরা নাগরিকত্ব পেয়ে যাবে, ওরা বাকি থেকে যাবে, পরে ওদের নাম ভোটার তালিকা থেকে বাদ দিলে ৫০ লক্ষ ভোট চলে যাবে দিদিমনির। ২০২১ সালে বিজেপি ২০০ আসন পাবে, দিদিমনি ৫০টাও পাবেন না। এই হিসেব কষে উনি কাজ করছেন, রাস্তায় ঘুরে বেড়াচ্ছেন। মাথা খারাপ হয়ে গিয়েছে। এটা তো সবে ট্রেলার, পুরো ফিল্ম বাকি আছে’’।

দিলীপ আরও বলেন, ‘‘প্রায় ২ কোটির বেশি মুসলিম অনুপ্রবেশকারী বাংলাদেশ থেকে এদেশে এসেছে। এর মধ্যে এক কোটি বাংলায় ঢুকেছে। বাকি এক কোটি সারা দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। বাংলায় এক কোটির মধ্যে ৭০ লক্ষ ভোটার রয়েছে। এই ৭০ লক্ষ ভোটারকে নিয়ে কখনও কংগ্রেস ক্ষমতায় এসেছে, কখনও সিপিএম এসেছে, আর এখন এদের ভোট পেয়ে তৃণমূল ক্ষমতায় আছে। উদ্বাস্তুদের মধ্যে অর্ধেকের ভোটার কার্ড বানানো হয়েছে, অর্ধেকের হয়নি’’।

এরপরই মুখ্যমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে তিনি বললেন, ‘‘আপনার মুরত জানা আছে৷ জিএসটি, তিন তালাক, রামমন্দির আটকাতে পারেননি৷ নাগরিকত্বও আটকাতে পারবেন না৷ দরকার পড়লে অনলাইনে নাগরিকত্ব দেব৷ আপনি দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে দেখবেন৷ কিছ্ছু করতে পারবেন না৷’’

দিলীপকে পাল্টা তোপ দেগে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘‘অনলাইনে কি ভাত রান্না করবি? যারা এসব বলছে তারা কিছুই করতে পারবে না৷’’

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও