নয়াদিল্লি: কোনও ক্ষেত্রেই আর আধার কার্ড বাধ্যতামূলক নয়। সুপ্রিম কোর্ট আগেই সেই রায় দিয়ে দিয়েছে। তা সত্বেও অনেক ক্ষেত্রে দেখা যাচ্ছে আধার দিতে বাধ্য করা হচ্ছে, এমনটাই অভিযোগ অনেকাংশেই পাওয়া যায়। সিম কার্ডের কানেকশন পেতে কিংবা ব্যাংকের কাজের জন্যে বিভিন্ন সময় চাওয়া হচ্ছে আধার কার্ড। তবে এবার আধার কার্ড চাইলে কড়া শাস্তির ব্যবস্থা করছে কেন্দ্রীয় সরকার।

ইতিমধ্যে এই সংক্রান্ত প্রস্তাব পাশ হয়েছে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায়। সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে বলা হয়েছিল কয়েকটি নির্দিষ্ট ক্ষেত্রে ছাড়া আর কোথাও আধার কার্ড জরুরি নয়। আর নির্দেশের কথা মাথায় রেখেই মন্ত্রিসভা সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে আধার চেয়ে চাপ দেওয়া হলে নেওয়া হতে পারে ১ কোটি টাকা জরিমানা। হতে পারে তিন থেকে ১০ বছরের জেল।

আধারের ক্ষেত্রে বায়োমেট্রিক ডেটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। অনেক গোপন তথ্য জমা থাকে সেখানে। তাই সেই ডেটা অপব্যবহারের সম্ভাবনা থাকে। তাই এই ব্যবস্থা করছে কেন্দ্র।

কোনও ব্যক্তির সম্পর্কে তথ্য ব্যবহার করার আগে অনুমতি না নিলে ১০,০০০ টাকা জরিমানা ও তিন বছরের জেলের শাস্তি আগে থেকেই আছে। অনুমতি ছাড়া কোথাও ছবি বা আইডি ব্যবহার করা হলে ১০,০০০ থেকে ১ লক্ষ টাকা পর্যন্ত জরিমানা হতে পারে।

গত বছর সেপ্টেম্বরে সুপ্রিম কোর্ট জানিয়ে দেয়, মোবাইলের সঙ্গে আধার লিংক করা জরুরি নয়। শুধুমাত্র প্যানের সঙ্গে আধার সংযুক্তিকরণের ক্ষেত্রেই সম্মতি দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। আর আয়কর রিটার্নের ক্ষেত্রে জরুরি হবে আধার কার্ড। সিবিএসি, নিট কিংবা ইউজিসি-র ক্ষেত্রেও আধার জরুরি নয়। এমনকী কোনও ভর্তুকি পাওয়ার ক্ষেত্রে বা সোশ্যাল ওয়েলফেয়ার স্কিমেই আধার যুক্ত করতে না চাইলে থাকবে ‘এক্সিট’ অপশন।

শীর্ষ আদালত আরও জানায়, অবৈধ অনুপ্রবেশকারীরা আধার কার্ড পাবে না। স্কুলে ভর্তি হওয়ার ক্ষেত্রেও আধার লাগবে না। তবে কেন্দ্রীয় সরকার যাতে আধারের ডেটা নিরাপদ করার জন্য জরুরি আইন নিয়ে আসে, সে ব্যাপারে নির্দেশ দিয়েছিল কোর্ট।