কলকাতা ২৪x৭: ক্রিকেটের মাঠে আবার ভারত-পাকিস্তান মহারণ। তাও আবার আইসিসি অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের সেমিফাইনালের মত হাইভোল্টেজ ম্যাচে। ১৩তম যুব বিশ্বকাপে মঞ্চে ভারত-পাক দু’দল সম্মুখ সমরে নামছে দশমবারের মতো। আগের ১২টি বিশ্বকাপের আসরে দু’দল মুখোমুখি লড়াইয়ে নেমেছে ৯ বার। ৩টি বিশ্বকাপে যুযুধান দুই প্রতিবেশী দেশ একে অপরের বিরুদ্ধে খেলতে নামেনি।

ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন ভারত এবার সেমিফাইনালে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ফেভারিট হলেও টুর্নামেন্টের ইতিহাস পাকিস্তানের দিকে ঝুঁকে রয়েছে। কেননা যুব বিশ্বকাপে গত ৯ বারের মুখোমুখি সাক্ষাতে ৫ বার জয় পেয়েছে পাকিস্তান। ৪টি ম্যাচ জিতেছে ভারত। প্রিয়ম গর্গরা তাই হিসাবটায় সমতা ফেরানোর চ্যালেঞ্জ নিয়ে মাঠে নামবেন মঙ্গলবার।

একনজরে দেখে নেওয়া যাক আইসিসি অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে ভারত-পাক লড়াই:

১৯৮৮: রাউন্ড রবিন পর্যায়ে পাকিস্তান ৬৮ রানে পরাজিত করে ভারতকে। প্রথমে ব্যাট করে পাকিস্তান নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৭ উইকেটের বিনিময়ে ১৯৪ রান তোলে। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ভারত ৩৯.৩ ওভারে ১২৬ রানে অল-আউট হয়ে যায়।

১৯৯৮: সুপার লিগে ভারত ৫ উইকেটে বিধ্বস্ত করে পাকিস্তানকে। প্রথমে ব্যাট করে পাকিস্তান ৪৬ ওভারে ১৮৮ রানে অল-আউট হয়ে যায়। পালটা ব্যাট করতে নেমে ভারত ৪০.১ ওভারে ৫ উইকেটের বিনিময়ে ১৯১ রান তুলে ম্যাচ জিতে যায়।

২০০০: ভারত-পাকিস্তান দু’দল একে অপরের বিরুদ্ধে খেলতে নামার সুযোগ পায়নি।

২০০২: সুপার লিগে পাকিস্তান ২ উইকেটে পরাজিত করে ভারতকে। প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ভারত ৪৮.৫ ওভারে ১৮১ রানে অল-আউট হয়ে যায়। জবাবে পাকিস্তান ৪৩.৪ ওভারে ৮ উইকেটের বিনিময়ে ১৮৪ রান তুলে ম্যাচ জিতে যায়।

২০০৪: সেমিফাইনালে পাকিস্তান ৫ উইকেটে হারিয়ে দেয় ভারতকে। প্রথমে ব্যাট করে ভারত ৪৭.৩ ওভারে ১৬৯ রানে অল-আউট হয়ে যায়। পালটা ব্যাট করতে নেমে পাকিস্তান ৪৪.৫ ওভারে ৫ উইকেটের বিনিময়ে ১৭১ রান তুলে ম্যাচ পকেটে পোরে।

২০০৬: ফাইনালে ভারতকে ৩৮ রানে হারিয়ে দেয় পাকিস্তান। প্রথমে ব্যাট করে পাকিস্তান ৪১.১ ওভারে ১০৯ রানে অল-আউট হয়ে যায়। পালটা ব্যাট করতে নেমে ভারত ১৮.৫ ওভারে ৭১ রানে অল-আউট হয়ে যায়।

২০০৮: ভারত-পাকিস্তান একে অপরের মুখোমুখি হয়নি।

২০১০: কোয়ার্টার ফাইনালে পাকিস্তান ২ উইকেটে জয় তুলে নেয় ভারতের বিরুদ্ধে। প্রথমে ব্যাট করে ভারত ৯ উইকেটের বিনিময়ে ১১৪ রান তোলে। জবাবে পাকিস্তান ৮ উইকেটে ১১৭ রান তুলে ম্যাচ জিতে যায়।

২০১২: কোয়ার্টার ফাইনালে ভারত ১ উইকেটের উত্তেজক জয় তুলে নেয় পাকিস্তানের বিরুদ্ধে। প্রথমে ব্যাট করে পাকিস্তান ৪৫.১ ওভারে ১৩৬ রানে অল-আউট হয়ে যায়। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ভারত ৪৮ ওভারে ৯ উইকেটের বিনিময়ে জয়ের জন্য প্রয়োজনীয় ১৩৭ রান তুলে নেয়।

২০১৪: গ্রুপ লিগে ভারত ৪০ রানে হারিয়ে দেয় পাকিস্তানকে। প্রথমে ব্যাট করে ভারত নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৭ উইকেটের বিনিময়ে ২৬২ রান তোলে। জবাবে পাকিস্তান ৪৮.৪ ওভারে ২২২ রানে অল-আউট হয়ে যায়।

২০১৬: ভারত-পাকিস্তান একে অপরের বিরুদ্ধে খেলতে নামেনি।

২০১৮: সেমিফাইনালে ভারত ২০৩ রানের বিশাল ব্যবধানে উড়িয়ে দেয় পাকিস্তানকে। প্রথমে ব্যাট করে ভারত ৫০ ওভারে ৯ উইকেটের বিনিময়ে ২৭২ রান তোলে। পালটা ব্যাট করতে নেমে পাকিস্তান ২৯.৩ ওভারে মাত্র ৬৯ রানে অল-আউট হয়।