নয়াদিল্লি: ধোনির গ্লাভসে সেনার ‘বলিদান’ ব্যাজ বিতর্কে নতুন মোড়। ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের দাবি নাকচ করে বিশ্বক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ামক সংস্থা সাফ জানিয়ে দিল, মহেন্দ্র সিং ধোনির উইকেটকিপিং গ্লাভসে সেনার ‘বলিদান’ প্রতীকে আইসিসি’র ধারা লঙ্ঘিত হয়েছে। তাই কোনওভাবেই পুনরায় ওই প্রতীক গ্লাভসে ব্যবহার করে মাঠে নামতে পারবেন না ধোনি।

বুধবার সাউদাম্পটবে দক্ষিণ আফ্রিজার বিরুদ্ধে ম্যাচে উইকেটকিপিং গ্লাভসে সেনাবাহিনীর প্রতীক অর্থাৎ ‘ফ্লাইং ড্যাগার’ আঁকা উইকেটকিপিং গ্লাভস হাতে উইকেটের পিছনে দাঁড়ান ধোনি। বিষয়টি নজরে আসতেই প্রাথমিকভাবে সোশ্যাল মিডিয়ায় নেটিজেনদের কুর্নিশ কুড়িয়ে নেন মাহি। প্রোটিয়াদের বিরুদ্ধে বিরাট জয়কে ছাপিয়ে সেনাকে উৎসর্গ করে ধোনির এই বিশেষ গ্লাভস নিয়ে ইন্টারনেটে শুরু হয়ে যায় জোর চর্চা। কিন্তু সেনাবাহিনীর প্রতি ধোনির এই শ্রদ্ধা ভালোভাবে নেয়নি আইসিসি।

বৃহস্পতিবারই ধোনির গ্লাভস থেকে ভারতীয় সেনাবাহিনীর ব্যাজ খুলে ফেলার জন্য ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডকে নির্দেশ দেয় বিশ্বক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ামক সংস্থা। আইসিসি-র স্ট্র্যাটেজিক কমিউনিকেশনের জেনারেল ম্যানেজার ক্লেয়ার ফারলং সংবাদসংস্থা আইএএনএস-কে জানান, ‘আমরা বিসিসিআই-কে ধোনির গ্লাভস থেকে এই সেনাবাহিনীর ব্যাজ খুলে ফেলার জন্য অনুরোধ করেছি।’

পালটা উইকেটকিপিং গ্লাভসে সেনা-চিহ্ন বিতর্কে ধোনির পাশে দাঁড়ায় বোর্ড। আইসিসি-র আপত্তি সত্ত্বেও গ্লাভস থেকে ধোনি এই চিহ্ন তুলে দেবে না বলে শুক্রবার পরিষ্কার জানিয়ে দেন ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের সিওএ প্রধান বিনোদ রাই। অর্থাৎ রবিবার কেনিংটন ওভালে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে এই উইকেটকিপিং গ্লাভস হাতেই মাঠে নামবেন মাহি, বিসিসিআইয়ের তরফ থেকে এমনটাই বার্তা দেওয়া হয়।

বাকি ম্যাচগুলিতেও ধোনি এই উইকেটকিপিং গ্লাভস পরেই খেলবে বলে জানিয়ে দেয় ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড৷ বিসিসিআই-এর সিওএ প্রধান বিনোদ রাই সংবাদসংস্থা পিটিআই-কে জানান, ‘এ ব্যাপারে বিসিসিআই ইতিমধ্যেই আইসিসি-কে অনুরোধ করে চিঠি দিয়েছে। আইসিসি-র নিয়মানুসারে কোনও খেলোয়াড়রা তাদের খেলার সরঞ্জাম বা পোশাকে কোনও ব্যবসায়ীক, ধর্মীয় ও মিলিটারি লোগো লাগাতে পারে না। কিন্তু এটি কোনভাবে ব্যবসায়ীক বা ধর্মীয় নয়৷ তাছাড়া এটি প্যারামিলিটারি রেজিমেন্টার ড্যাগারও নয়। সুতরাং ধোনি আইসিসি-র নিয়ম লঙ্ঘন করেনি।’

ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ামক সংস্থার কাছে এই মর্মে বিসিসিআইয়ের তরফ থেকে অনুমতিও চাওয়া হয়। যাতে আগামি ম্যাচগুলিতে ‘বলিদান’ ব্যাজ পরেই মাঠে নামতে পারেন ধোনি। কিন্তু ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ামক সংস্থা সাফ জানিয়ে দিল, গোটা ঘটনায় ধোনি আইসিসি’র জি-১ ধারা (পার্সোনাল মেসেজ) লঙ্ঘন করেছেন। অর্থাৎ ধোনির গ্লাভসে ‘বলিদান’ ব্যাজ আগামিদিনে কোনওভাবেই বরদাস্ত করবে না তাঁরা।