আমদাবাদ: ভারতের মাটিতে টানা দু’টি টেস্ট হারের ফলে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে ওঠার সম্ভাবনা শেষ ইংল্যান্ডের। হারের কারণ হিসেবে স্পিনের বিরুদ্ধে ইংল্যান্ড ব্যাটসম্যানদের জড়তা কিংবা পিচ নিয়ে চর্চা চলছে চারদিকে। ঠিক এমন সময় ভিন্ন সুর গাইলেন প্রাক্তন ইংরেজ তারকা ব্যাটসম্যান ইয়ান বেল। প্রাক্তন মিডল-অর্ডার ব্যাটসম্যান বললেন রোটেশন পদ্ধতিই টানা দু’টি টেস্টে হারের কারণ থ্রি-লায়ন্সদের।

বেলের কথায়, রুটরা আসন্ন অ্যাশেজের দিকে বেশি মনোযোগী হতে গিয়ে বিপদ ডেকে এনেছেন। কিন্তু ভারতের মাটিতে চলতি টেস্ট সিরিজ যে রুটদের কাছে অ্যাশেজের চেয়েও বড় ছিল, সেকথাও স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন দেশের জার্সিতে ১১৮টি টেস্ট খেলা প্রাক্তন তারকা। প্রথম টেস্ট জয়ের পর ইংল্যান্ডের উইনিং কম্বিনেশন ভাঙা মোটেই উচিৎ হয়নি বলে দাবি করেছেন বেল। তাঁর কথায়, ‘ইংল্যান্ড নিজেই এই ফলাফলের জন্য দায়ী। ওরা অ্যাশেজের স্কোয়াডের কথা ভেবে অনেক দূরের চিন্তাভাবনায় মন দিয়েছে। কিন্তু এই সিরিজটা ওদের কাছে অ্যাশেজের চেয়েও বেশি গুরুত্বপূর্ণ ছিল। আমার মতে এই সিরিজটা অ্যাশেজের মতই বড় ছিল।’

বেলের সংযোজন, ‘এত বড় একটা টেস্ট সিরিজে কেন আমরা রোটেশন পদ্ধতিতে খেলব। আমার মতে ওখানেই ইংল্যান্ড হেরে গিয়েছে।’ বেল বলছেন, ‘ভারতে খেলতে আসা কিংবা অস্ট্রেলিয়ায় খেলতে যাওয়ার মত বিষয়গুলিকে সবার আগে গুরুত্ব দেওয়া উচিৎ। এই সফরগুলোতে ক্রিকেটারদের কেরিয়ার তৈরি হয়। পিছনে ফিরে তাকালেই বোঝা যাবে এই সকল আবহাওয়ায় সিরিজ জয়গুলো মানুষ বহুদিন মনে রেখেছে।’

একইসঙ্গে ইংল্যান্ড টিম ম্যানেজমেন্টের উদ্দেশ্যে প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়ে বেল বলেছেন, ‘পরবর্তীতে ভারত যদি ইংল্যান্ডে টেস্ট সিরিজ খেলতে এসে ১-০ বা ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে যায় তাহলে কী ওরা উইনিং কম্বিনেশন ভাঙবে? আমি নিশ্চিত আগামী গ্রীষ্মে ইংল্যান্ডে যখন ওরা আসবে তখন ওরা দলের সেরা বোলারকে বা সেরা প্লেয়ারকে অহেতুক রোটেট করবে না। ওরা সিরিজ জিততে চাইবে।’

উল্লেখ্য, ইংল্যান্ড দলে সাম্প্রতিক সময়ে রোটেশন পদ্ধতি চর্চার শিরোনামে। আর সেই রোটেশন পদ্ধতির কারণে চেন্নাইয়ে প্রথম টেস্ট জয়ের পরেও জোস বাটলার এবং জেমস অ্যান্ডারসনকে দ্বিতীয় টেস্টে বিশ্রাম দেয় ইংল্যান্ড। দ্বিতীয় টেস্টে ৩১৭ রানে হারতে হয় তাদের। দ্বিতীয় টেস্টে হারের পর অভিজ্ঞ স্পিনার মইন আলিকে দেশে ফেরত পাঠিয়েছে তারা। আবার প্রথম দু’টি টেস্টে স্কোয়াডে না থাকা জনি বেয়ারস্টোকে তৃতীয় টেস্টে দলে সুযোগ দিয়েছিল ম্যানেজমেন্ট। সবমিলিয়ে বেলের চোখে জাতীয় দলের রোটেশন পদ্ধতিই টানা দু টেস্টে হারের কারণ।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।