নয়াদিল্লি: সামরিক শক্তিকে আরও কিছুটা শক্তিশালী করল ভারত। যে স্পাইস বোমে কেঁপে উঠেছিল পাক-অধিকৃত বালাকোট, সেই স্পাইস বোমা এবার চলে এল ভারতে। পূর্ব নির্ধারিত চুক্তি অনুযায়ী, বায়ুসেনা ইসরায়েল থেকে স্পাইস ২০০০ বোম সরবরাহ শুরু করেছে। প্রথম ধাপে যতটা পরিমাণ আসার কথা ছিল তা চলে এসেছে।

অত্যাধুনিক পরিকল্পনাকে বাস্তবায়িত করার জন্য ভারতীয় বায়ুসেনা এখন পরিকল্পনা করেছে বাঙ্কার ভাঙা এবং বাড়ি ধ্বংস করার জন্য মার্ক-৮৪ মানের স্পাইস-২০০০ বোমা ব্যবহার করার। এই অতি শক্তিশালী বোমাগুলি গোয়ালিয়র, মধ্যপ্রদেশে পৌঁছে গেছে। স্পাইস-২০০০ বোমা মিরাজ-২০০০ যুদ্ধবিমানের মাধ্যমে ব্যবহৃত হয়।

এই বোমা এবং তার সরঞ্জাম কিনতে খরচ পড়বে ৩০০ কোটি টাকা। ইজরায়েলের কাছ থেকে এই বোমা কেনার পরিকল্পনা করা হয়েছে। ৬০ কিমি দূরত্বে শত্রুপক্ষের ঘাঁটিতে গিয়ে তা বিস্ফোরণ ঘটাতে সক্ষম। তাতে ধূলিসাত্‍ হয়ে যাবে বাঙ্কার এবং বাড়ি।

SPICE এর পুরো নামটি হল Smart Precise Impact and Cost Effective, এর দ্বারা ডাম্ব বা আনগাইডেড বোমাকে স্মার্ট গাইডেড এয়ার-টু-সারফেস বোমায় রূপান্তরিত করা হয়৷ যা স্ট্যান্ডঅফ রেঞ্জ থেকে ফেলা যায়৷ ইজরায়েলি কোম্পানি পোপে মিশাইল এটি তৈরী করে৷ হাই-ভ্যালু টার্গেটের বিরুদ্ধে অসাধারণ নিপুণতা অর্জন করার জন্য এটি উন্নত ইলেকট্রো-অপটিক্যাল গাইডেন্স সিস্টেম ব্যবহার করে।

SPICE 2000 একটি সিন- ম্যাচিং টেকনোলজি ব্যবহার করা হয়৷ যা টার্গেট চিহ্নিত করে ও এস ট্র্যাকারের সাহায্যে তাতে আঘাত করে৷ স্পাইস পরিবারের অন্তর্গত SPICE 2000 নির্ধারিত লক্ষ্যবস্তুর লোকেশনে ভুল এবং জিপিএস জ্যামিং প্রতিরোধ করে পাশাপাশি ক্ষয়ক্ষতি হ্রাস করতে পারে।

ইসরায়েল থেকে সরবরাহ করা এই অত্যাধুনি স্পাইস-২০০০ একতী বিল্ডিংকে ধূলিসাৎ করে দিতে পারে। চলতি চুক্তি শেষ হলেই আরও বেশি পরিমাণে তা অর্ডার করা হবে বলেও জানা গিয়েছে।

চলতি বছরের জুন মাসে ১০০ টি বোমা কেনা হবে সেই ভিত্তিতেই এই চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছিল। ইজরায়েল সেনাবাহিনীর ব্যবহারে জন্য রাফাল দ্বারা এটি তৈরী করা হয়েছে৷ সুরক্ষিত ও আন্ডারগ্রাউন্ড কমান্ড সেন্টারের বিরুদ্ধে যথাযথভাবে এটি ব্যবহার করার ক্ষমতা অর্জন করেছে ভারতীয় বায়ুসেনা৷

প্রসঙ্গত, বালকোটে এয়ার স্ট্রাইক হয়েছিল ঠিক ২৬ ফেব্রুয়ারি ভোর রাতে। বিভিন্ন সূত্রে বহু জঙ্গির মৃত্যুর দাবি করা হয়। সেই বিষয়ে ওঠে বহু প্রশ্ন। এখনও বিরোধীদের আক্রমণের মুখে পড়তে হয় সরকার। এয়ার স্ট্রাইকের প্রমাণ দেয় খোদ বায়ুসেনা।