চেন্নাই: বালাকোটে ভারতীয় বায়ুসেনার এয়ারস্ট্রাইকে জঙ্গি মৃত্যুর সংখ্যা নিয়ে রাজনৈতিক তরজা অব্যাহত৷ এই বিতর্কে এবার মুখ খুললেন উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমানের বাবা৷ তাঁর মন্তব্যে লোকসভা ভোটের মুখে স্বস্তির হাওয়া বইতে শুরু করেছে গেরুয়া শিবিরে৷

উইং কমান্ডার অভিনন্দনের বাবা সিমহাকুট্টি বর্তমান দাবি করেন, বালাকোটে জইশ ঘাঁটি গুড়িয়ে দিতে বায়ুসেনা যে লেসার স্মার্ট বোমা (স্পাইস-২০০০) ব্যবহার করেছিল তাতে কম করেও ২৫০ থেকে ৩০০ জঙ্গি মারা যেতে পারে৷ সিমহাকুট্টি নিজেও একজন এয়ার মার্শাল৷ এখন অবসর নিয়েছেন৷ আইআইটি মাদ্রাজে পড়ুয়াদের সঙ্গে ডিফেন্স নিয়ে আলোচনায় এই কথা বলেন তিনি৷

অভিনন্দনের বাবা বলেন, পুলওয়ামা হামলার পর পাকিস্তান জানত ভারত এর জবাব দেবে৷ তারা সতর্ক ছিল৷ কিন্তু ভারত যে তাদের এলাকায় ঢুকে পড়বে এটা কল্পনাতেও ভাবতে পারেনি৷ বালাকোট এয়ারস্ট্রাইক প্রসঙ্গে তিনি বলেন, জইশ ঘাঁটিতে একেবারে সর্বাধিক টার্গেটে আঘাত হানা হয়েছিল৷ হয়তো স্ট্রাকচারাল ড্যামেজ কম হয়েছিল৷ কিন্তু ওই শক্তিশালী বোমা সবার্ধিক টার্গেটকে খতম করতে পেরেছে৷

বালাকোটের ভারতীয় বায়ুসেনার প্রত্যাঘাতের পরেই পাকিস্তান চারটি এফ-১৬ যুদ্ধবিমান পাঠায় ভারতে হামলার জন্য৷ তাদেরই একটি বিমানকে ধাওয়া করে গুলি করে মাটিতে অবতরণ করতে বাধ্য করেন উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমান৷ কিন্তু তিনি শত্রু দেশের সেনার হাতে ধরা পড়ে যান৷ পাকিস্তানের হাতে বন্দি হওয়ার দু’দিন পর তিনি দেশে ফিরে আসেন৷