নয়াদিল্লিঃ  একদিকে সীমান্ত চলছে ভারত ও চিনের সংঘাত। মাস ঘুরলে খুললেও এখনও পর্যন্ত সেই সংঘাত নিয়ন্ত্রণে আসার কোনও সম্ভাবনা কথা শোনা যায়নি। এই পরিস্থিতিতে কাশ্মীরের এক নতুন এয়ারস্ট্রিপ তৈরির কাজ শুরু করলো ভারতীয় বায়ুসেনা।

জানা গিয়েছে দক্ষিণ কাশ্মীরের বিজবেহারা এলাকায় জাতীয় সড়কের কাছে তৈরি হচ্ছে সাড়ে তিন কিলোমিটার লম্বা সেই রানওয়ে। কোন জরুরি পরিস্থিতিতে কাজে লাগানোর জন্যই এই রানওয়ে তৈরি হচ্ছে বলে জানা গিয়েছে।

এরকম একটি রানওয়ে হয় তৈরি হলে পাকিস্তান ও চিন দুদিকের সীমান্তের ক্ষেত্রেই ভারতের বিশেষ সুবিধা হবে বলে মনে করা হচ্ছে। যদি যুদ্ধের মতো পরিস্থিতি তৈরি হয় তাহলে এই এয়ারস্ট্রিপ এক বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নেবে। ভারতীয় সেনার পক্ষে এই অ্যাপসটি ব্যবহার করা খুব সুবিধাজনক হবে বলেও জানা যাচ্ছে।

পুলওয়ামা হামলার পর যে পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল সেই সময় এই এয়ারস্ট্রিকে খুবই দরকার ছিল। এছাড়া এই এয়ারস্ট্রিপ ভারতের যেকোনো প্রাকৃতিক বিপর্যয় সাহায্য করার ক্ষেত্রে বিশেষ ভূমিকা নেবে।

শ্রীনগর এবং বানিহাল হাইওয়েতে সাড়ে তিন কিলোমিটারের এইচডি তৈরি হচ্ছে। ২০১৭ তে এয়ারস্ট্রিপ তৈরির সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। দেশজুড়ে এরকমই আরো ১২ টি এয়ারস্ট্রিপ তৈরি হওয়ার কথা বলে জানা গিয়েছে। কাশ্মীর ছাড়াও রাজস্থান, উত্তরপ্রদেশ, তামিলনাড়ু, অন্ধ্রপ্রদেশ, পশ্চিমবঙ্গ, ওড়িশা এবং গুজরাটি ওই ধরনের এসিড তৈরি করা হচ্ছে।

কাশ্মীরে এই এয়ারস্ট্রিপ তৈরি করতে খরচ হয়েছে ১১৯ কোটি টাকা। 8 মাস সময় লাগবে এটি তৈরি করতে।

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।