রাঁচি: সাধারণত পোষ্য সারমেয়র সঙ্গে মজা করে কিংবা বাবার বাইকে সওয়ারি হয়ে লকডাউনের মাঝে সোশ্যাল মিডিয়ায় ধরা দিচ্ছিল সে। কিন্তু মঙ্গলবার সম্পূর্ণ ভিন্ন এক অভিজ্ঞতা তাঁর অনুরাগীদের সঙ্গে ভাগ করে নিল মহেন্দ্র সিং ধোনির খুদে সেলেব কন্যা জিভা।

রাঁচিতে ধোনির ফার্মহাউসের লনে মঙ্গলবার সন্ধেয় একটি রঙিন পাখিকে অচৈতন্য অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে জিভা। খবর যায় অন্দরমহলে। মেয়ের ডাকে ছুটে এসে অসুস্থ পাখিটির শুশ্রূষা করেন ধোনি। এরপর সুস্থ হলে পাখিটি উড়ে যায়। গোটা ঘটনাটি ইনস্টা পোস্টে গল্পাকারে অনুরাগীদের সঙ্গে শেয়ার করে নিয়েছে জিভা।

ইনস্টাগ্রামে একটি লম্বা আবেগঘন পোস্টে জিভা লিখেছে, ‘আজ সন্ধেয় বাড়ির লনে একটা পাখিকে আমি অচৈতন্য অবস্থায় দেখি। আমি চিৎকার করে বাবা-মা’কে ডাকি। বাবা এসে পাখিটাকে হাতে তুলে নিয়ে তাকে জল খাওয়ায়। কিছু সময় পর পাখিটা চোখ খোলে। আমি খুব খুশি হই সেটা দেখে।’ এখানেই শেষ না করে জিভে আরও লিখেছে, ‘এরপর একটি বাস্কেটে পাতার উপর আমরা ওকে রেখে দিই। মা বলল ওটা নাকি কপারস্মিথ (বাংলায় বসন্ত বাউড়ি)। কী সুন্দর ছোট্ট পাখিটা। হঠাৎই পাখিটা উড়ে গেল। আমি চেয়েছিলাম ও যেন থাকে। কিন্তু মা বলল পাখিটা ওর মায়ের কাছে চলে গিয়েছে।’

গল্পাকারে গোটা ঘটনার বর্ণণা এবং সঙ্গে পাখিটির কয়েকটি ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছে জিভা। স্বাভাবিকভাবেই মাহির খুদে কন্যা এবং তাঁর পাখির গল্প যে দারুণ উপভোগ করেছেন নেটিজেনরা, সেটা মন্তব্য দেখেই পরিষ্কার। এর আগে লকডাউনে একাধিকবার বাবার বাইকে সওয়ারি হয়ে ফার্ম হাউস ঘুরেছেন জিভা। মা সাক্ষী সেই ভিডিও ক্যামেরাবন্দি করে পোস্ট করেছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। পাশাপাশি টেনিস বল নিয়ে বাড়ির লনে পোষ্যের সঙ্গে জিভার অবসর কাটানোর মুহূর্তও ভাইরাল হয়েছিল ইন্টারনেটে।

এদিকে দেশজুড়ে লকডাউন শিথিল হলেও করোনা সংক্রমণের হার কমার কোনও লক্ষণ নেই। স্বাভাবিকভাবে গৃহবন্দি দশা দশা কাটিয়ে অনুশীলনের নামার অপেক্ষা দীর্ঘায়িত হচ্ছে ক্রিকেটারদের। তালিকায় রয়েছেন ধোনিও। আইপিএলে নিজেকে প্রমাণ করে ফের জাতীয় দলে ফিরতে মরিয়া তিনি। কিন্তু ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগের উপর আপাতত স্থগিতাদেশের কারণে কবে কীভাবে সেটা সম্ভব হবে সেটা অজানা।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ