মুম্বই: চেন্নাই সুপার কিংসের বিরুদ্ধে পঞ্জাব কিংসের ধরাশায়ীর জন্য অনেকাংশ দায়ী রবীন্দ্র জাদেজা৷ দীপক চাহার মাত্র ১৩ রানে চার উইকেট নিয়ে পঞ্জাব ইনিংসের মেরুদণ্ড ভেঙে দিলেও ‘স্যর জাদেজা’র দুরন্ত ফিল্ডিং কৃতিত্বও কম নয়৷ তাই ম্যাচের দলে জাদেজার মতো ১১ জন ফিল্ডার চেয়ে বসলেন চাহার৷

শুক্রবার ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে পঞ্জাব কিংস-কে ৬ উইকেটে হারিয়ে ২০২১ আইপিএলের প্রথম জয়ের স্বাদ পায় চেন্নাই সুপার কিংস৷ এই জয়ে বড় ভূমিকা নেন চাহারের বিধ্বংসী বোলিং ও জাদেজার দুরন্ত ফিল্ডিং৷ জাদেজা যে বর্তমানে ভারতীয় দলের সেরা ফিল্ডার তা প্রমাণ করেছেন আগেই৷ আইপিএলেও ম্যাজিক-মুহূর্ত উপহার দিলেন বিশ্বের অন্যতম সেরা ফিল্ডার। বাজপাখির মত উড়ন্ত ক্যাচ নিলেন এবং ডিরেক্ট থ্রো-য়ে রান-আউট করলেন।

চাহারের হিরো হওয়ার মঞ্চে এভাবেই আলো ছড়ালেন জাদেজা। ফের একবার জানিয়ে দিলেন, কেন তিনি বিশ্বের সেরা ফিল্ডার এই মুহূর্তে। শুরু থেকেই দীপক চাহারকে সামলাতে গিয়ে হিমশিম খায় পঞ্জাব কিংস। মাঠে স্বমহিমায় ছিলেন জাদেজাও। ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠার আগেই পঞ্জাব ক্যাপ্টেন লোকেশ রাহুলকে সরাসরি থ্রো-য়ে রান-আউট করলেন জাদেজা৷ পাশাপাশি ক্রিস গেইলের ক্যাচ তালুবন্দি করলেন উড়ন্ত অবস্থায়। জাদেজার ফিল্ডিংয়ে হতবাক ক্রিকেটমহল।

ম্যাচের সেরা পুরস্কার নিয়ে চাহার বলেন, ‘প্রথম ওভারে রীতুরাজ ক্যাচ হওয়ার জন্য দৌড়েছিল৷ কিন্তু এখানে জাদেজা হলে ক্যাচ ধরতে পারত৷ ওর বিশ্বের অন্যতম সেরার ফিল্ডার৷ ও আমার বোলিং অনেক ক্যাচ নিয়েছে৷ আমি চাই মাঠে জাদেজার মতো ১১ জন ফিল্ডার৷’ জাদেজার তুখোড় ফিল্ডিংয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় জাদেজা ট্রেন্ডিং। প্রিয় তারকাকে নিয়ে একের পর এক পোস্ট করছেন ক্রিকেট সমর্থকরা। প্রাক্তন ইংল্যান্ড অধিনায়ক মাইকেল ভন তো সরাসরি বলেই দিলেন, জাদেজাই ভারতের সর্বকালের সেরা ফিল্ডার।

চাহারের বোলিং ও জাদেজার ফিল্ডিং সুপার কিংসকে সহজ জয় এনে দেন৷ ইনিংসের চতুর্থ ডেলিভারিতে দুরন্ত লেগ-কাটারে ময়াঙ্ক আগরওয়ালের অফ-স্টাম্প নড়িয়ে দেন চাহার৷ তৃতীয় ওভারে রবীন্দ্র জাদেজার দুরন্ত থ্রো-তে রান-আউট হয়ে ডাগ-আউটে ফেরেন পঞ্জাব ক্যাপ্টেন রাহুল৷ পঞ্চম ওভারের দ্বিতীয় ডেলিভারিতে ক্রিস গেইলকে তুলে নিয়ে পঞ্জাবকে মোক্ষম ধাক্কা দেন চাহার৷ দুরন্ত ক্যাচ নিয়ে মাত্র ১০ রান ‘দ্য ইউনিভার্স বস’-কে ডাগ-আউটে ফেরান জাদেজা৷ একই ওভারের চতুর্থ ডেলিভারিতে নিকোলাস পুরানকে তুলে নিয়ে পঞ্জাব কিংস-কে ব্যাকফুটে ঠেলে দেন চাহার৷ মাত্র ১৯ রানে চার উইকেট হারায় প্রীতির দল৷ সপ্তম ওভারের দ্বিতীয় ডেলিভারিতে দীপক হুডাকে ডাগ-আউটে ফিরিয়ে পঞ্জাব ইনিংসের কফিনে শেষ পেরেকটি পুঁতে দেন চাহার৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.