নয়াদিল্লি: এআইএফএফ সভাপতি নয় দলীয় জোটের কাছে মাথা না নোয়ালে সুপার কাপ তো বতেই, ধোঁয়াশা তৈরি হয়েছিল আই লিগ ও আইএসএলের ভবিষ্যৎ নিয়েও। অবশেষে প্রফুল প্যাটেল মাথা নোয়াতেই সুপার কাপ নিয়ে কাটল জট। আগামি ১০-১৫ এপ্রিল বিদ্রোহী নয় দলীয় জোটের সঙ্গে আলোচনায় বসার কথা জানাতেই সুপার কাপে অংশগ্রহণ করার বিষয়ে সবুজ সংকেত দিল আই লিগের ক্লাবগুলি। অর্থাৎ যথাসময়েই ভুবনেশ্বরে শুরু হতে চলেছে সুপার কাপের খেলা।

আইএসএল-কে সামনের সারিতে রাখতে গিয়ে আই লিগের গুরুত্ব খর্ব করে ফেলছে ভারতের ফুটবল ফেডারেশন। তাই আগামী মরশুমে আই লিগ ও আইএসএলের সংযুক্তিকরণ ইস্যুতে ফেডারেশন কী পদক্ষেপ নিতে চলেছে, তা জানতে চেয়েই চিঠি পাঠানো হয় ফেডারেশনের কাছে। কিন্তু সেই চিঠির পরিপ্রেক্ষিতে তেমন কোনও উচ্চবাচ্য করা হয়নি ফেডারেশনের তরফ থেকে। সভাপতি কুশল দাস জানান প্রেসিডেন্ট দেশে ফিরলে এবিষয়ে আলোচনায় বসা হবে।

আরও পড়ুন: চিপকে ধোনির ফর্ম চিন্তায় রাখবে কোহলিদের

এরইমধ্যে বয়কটের ডাক তুলে ভুবনেশ্বরে সুপার কাপ কোয়ালিফায়ার খেলতে এসে ফিরে যায় মিনার্ভা এফসি, গোকুলাম কেরল এফসি কিংবা আইজল এফসি’র মতো আইলিগের দলগুলি। ফেডারেশন সঠিক রোডম্যাপ ঠিক না করলে আই লিগের ক্লাবগুলির জোটের সামনে সুপার কাপে ভবিষ্যৎ অনিশ্চিত হয়ে পড়ে। ২০ মার্চ নয়াদিল্লির সভায় সাত দফা দাবি নিয়ে ফেডারেশনকে একটি রোডম্যাপ দেওয়া হয় জোটের পক্ষ থেকে। সেখানে ২০ দলকে নিয়ে দেশে একটাই লিগ, পাশাপাশি প্রিমিয়র ডিভিশন থেকে দ্বিতীয় ডিভিশনে ওঠা-নামা কিংবা বিদেশি সংখ্যা কমানোর বিষয়ে প্রস্তাব দেওয়া হয়।

আরও পড়ুন: ভোটপ্রচারে ফুটবলে মত্ত রোনাল্ডো ভক্ত রাহুল

কার্যত এরপরই ন’টি আই লিগ ক্লাবের জোটকে ভয়ঙ্কর চেহারা নিতে দেখে তাদের সঙ্গে আলোচনায় বসার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন এআইএফএফ প্রেসিডেন্ট। সব ঠিকঠাক থাকলে আগামী ১৪ এপ্রিল প্রফুল প্যাটেল বসতে চলেছেন আই লিগের ক্লাবগুলিকে নিয়ে। এআইএফএফ প্রেসিডেন্ট প্রফুল প্যাটেলের এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন মোহনবাগান অর্থসচিব দেবাশিস দত্ত। ন’টি আই লিগ ক্লাবের জোটের মুখ হিসেবে ফেডারেশনের বিরুদ্ধে সবচেয়ে বেশি সোচ্চার হয়েছিলেন তিনিই।

দেবাশিস দত্তের কথায়, ‘ফেডারেশনের এই সদিচ্ছাকে আমরা সাধুবাদ জানাই। জোট কতটা শক্তিশালী সেটা তারা অন্তত বুঝুক।’ তবে সুপার কাপ খেললেও প্রাথমিক পর্বের যেসব খেলাগুলি ওয়াকওভার গিয়েছে সেগুলো পুনরায় আয়োজন করে সুপার কাপ নতুন করে শুরু করার আহ্বানও ফেডারেশনকে জানান বাগান অর্থসচিব।