দেবময় ঘোষ, কলকাতা: কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয় নিজের লোকসভা আসন আসানসোলে প্রচার শুরু করার আগেই বিতর্কে জড়িয়েছেন রাজ্যে বিজেপির প্রচারের‘থিম-সং’ নিয়ে৷ এর মধ্যেই বাবুলের প্রতিদ্বন্দ্বী তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী মুনমুন সেন তাঁকে ‘মিষ্টি ছেলে’বলেছেন৷ কিন্তু পাশাপাশি আসানসোলের অন্যান্য তৃণমূল কংগ্রেস নেতারা মিষ্টি ছেলের বিরুদ্ধে বাক্যবাণ ব্যবহার করতে ছাড়ছেন না৷ আসানসোলের মেয়র ইতিমধ্যেই বলে রেখেছেন, যেসব তৃণমূল কাউন্সিলার দলকে নিজের ওয়ার্ড থেকে লিড না দিতে পারবেন, তারা অবসর নিতে পারেন৷ তবে লিড দিতে পারলেই ‘ইনাম৷’

এই পরিস্থিতিতে বাবুল কিন্তু প্রতিদ্বন্দ্বী মুনমুন সেনের উপর আস্থা রাখছেন৷ তবে শুধু মুনমুন নয়, ২০১৪ সালে বাবুলের প্রতিদ্বন্দ্বী দোলা সেনকেও পাঁচ বছর বাদে সার্টিফিকেট দিতে তৈরি বাবুল৷ Kolkata24x7 এর সঙ্গে একান্ত আলাপচারিতায় গায়ক-সাংসদ এবং একাধারে মন্ত্রী বাবুলের বক্তব্য, ‘‘মুনমুনদি নিজে কোনও কুরুচিকর মন্তব্য করবেন না৷ আগের বার কিন্তু দোলা সেনও করেননি৷ ওর আশপাশের নেতারা করেছিলেন৷ লড়াই চলবে, দেখি এরা (তৃণমূল কংগ্রেস) কতটা নিচে নামতে পারে৷ কিন্তু মুনমুনদি কোনও কুরুচিকর মন্তব্য করবেন না৷’’

দোলা সেন থেকে মুনমুন সেন – লড়াইটা সহজ, নাকি কঠিন হল? বাবুলের জবাব, ‘‘একটাই পার্থক্য আমি বলব, দোলা সেন আমার সমগোত্রীয় ছিলেন না৷ উনি একজন কঠোর রাজনীতিবিদ৷ মুনমুন সেন আমার আমার সমগোত্রীয়৷ আমি বম্বে যাওয়ার আগে ১৯৯২ সালে এইচএমভি থেকে একটি রেকর্ডিং বের হয়৷ নাম ছিল ‘অন্তক্ষরি৷’ সেখানে কে কে ছিল জানেন? তাপস পাল এবং মুনমুন সেন৷ আমিই গানগুলি গেয়েছিলাম৷ লিখেছিলেন পুলক বন্দ্যোপাধ্যায়৷ আর সমস্ত হিন্দি গান বাংলায় রূপান্তরিত হয়েছিল৷ পরবর্তীকালে কী জানবো এই তাপস পাল এবং মুনমুন সেনই আমার প্রবল প্রতিপক্ষ হয়ে দাঁড়াবে৷’’

মুনমুন সম্পর্কে বাবুল জানান, ‘‘কিন্তু এই গান বিতর্কের মধ্যেও মুনমুন সেন শিক্ষিত মার্জিত ভাষায় কথা বলেছেন৷ আমি প্রথমেই বলেছি, ওর চারপাশে আসানসোলে কিছু পচা তৃণমূলী নেতা আছে, তাঁরা অনেক কিছু বলবে৷ কিন্তু মুনমুনদি নিজে কোনও কুরুচীকর মন্তব্য করবেন না৷ আমি ওকে ধন্যবাদ জানাবো৷ উনি এই কথা বলেছেন৷ রাজনীতিতে থাকলে তো অনেক কড়া কথা বলতে হয়৷ সেখানে যদি মিষ্টত্বটা বজায় রাখা যায় তবে তা খুবই ভালো৷ ’’

ভোট প্রচারের থিম-সং নিয়ে ওঠা বিতর্কে বাবুল তৃণমূল কংগ্রেসকে একহাত নিয়েছেন৷ ‘‘ভোট প্রচারের গানের কথা বলব৷ আমি গানটা যখন রেকর্ড করছিলাম, মিডিয়া সেটা কভার করেছিল৷ সেটা টিভিতে দেখিয়েছে, গানটা একদিনের মধ্যে সুপারহিট হয়ে গিয়েছে৷ আমার সঙ্গে যারা ছিল, তারা গানটাকে শেয়ার করেছে, ফেসবুক, ট্যুইটারে ছড়িয়ে গিয়েছে৷ কিন্তু কোথাও বিজেপি গানটিকে অফিশিয়ালি ‘রিলিজ’করেনি৷ নির্বাচন কমিশনে গানের কথা জমা দেওয়া হয়েছে৷ নির্বাচনের জন্য গান তৈরি নতুন বিষয় নয়৷ আদি কাল ধরে হয়ে চলেছে৷ বব ডিলান আমেরিকাতে বানাতো৷ কাজেই যেভাবে নিয়ম মেনে একটি ভিডিও রিলিজ করা দরকার বিজেপি সেভাবেই করবে৷’’ – বলেছেন বাবুল৷

তার আরও বক্তব্য, ‘‘ওটা কোনও বিজ্ঞাপন নয়৷ বলা হচ্ছে যে এটা নিউজ চ্যানেলে দেখানো হয়েছে৷ তার পরই বলা হচ্ছে, এটা বিজ্ঞাপন হিসেবে দেখানো হয়েছে৷ বিজ্ঞাপন তো পয়সা দিয়ে করতে হয় তবে তা হয় বিজ্ঞাপন৷ মানুষ যদি ফেসবুক এবং ট্যুইটারে গানটি ছড়িয়ে দেয় তবে কী করা যাবে৷ আমরা তো করিনি৷ শো-কজের জবাব দেওয়া হবে৷ ভুয়ো এফআইআর তো চলতে থাকবে৷ ২০১৪ সালেও হয়েছিল৷ আমার বিরুদ্ধে ভুয়ো করতে দিয়ে কালীদাস হয়ে নিজের ডাল নিজেই কাটছে৷ গাছটা উপড়ে ফেলা হবে আর কী …৷’’

Interview of BJP MP Babul Supriyo

মুখোমুখি বিজেপি সাংসদ বাবুল সুপ্রিয় #LoksabhaElection2019

Kolkata24x7 यांनी वर पोस्ट केले बुधवार, २० मार्च, २०१९